শুক্রবার, ডিসেম্বর 13, 2019

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

চারিদিকে ঝুলে আছে লম্বা কলা, মূলো, তাতেই খুশি আমলা-নেতা মাখেন গায়ে ধুলো। য্যানো-ত্যানো ধুলো না ভাই সোনায় গড়া, খাঁটি- তাইতো শুদ্ধি অভিযানে মিটছে তাদের ঘাঁটি।

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

এই তো গেলো নুসরাত ফের রুম্পা, মারলো কে? ধরছে কারা, মারছে কারা মানুষ-মুখোশে? ধরতে হবে, ঝারতে হবে সমাজ, পরিবেশ নইলে ঘুনে খেয়েই যাবে সব করবে শেষ। ছঁরপশ জবঢ়ষু

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

নতুন বইয়ের ঘ্রাণ ছুটবে আর কিছু দিন পরে, মন দিয়ে পাঠ করবে শিশু তোমার আমার ঘরে। নৈতিকতায় ভাসবে শিশু অক্ষরে অক্ষরে- না ভোগে য্যান্ তাদের মগজ কাদা-জীর্ণজ্বরে।

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

শীতের হাওয়ায় ফুল ফুটেছে ফল ধরেছে শীমে সবুজ সতেজ তরতাজা হয় নতুন পাতায় নিমে। টমেটো আর মূলোর সাথে ফের উঠেছে পালং ধনিয়া পাতায় রান্না সাজে চুলায় চুলায় যে ওম।

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

রাস্তাঘাটে, বাসে, মাঠে অফিস কিংবা শিক্ষালয় ওদের কিছু যায় আসে না সবখানেতে এক বলয়। সে বলয়ের মানুষরূপী অমানুষ কয় পোশাকদোষ আরে বেয়াকুব দুই বছরের শিশুর দেহে কোন সে রোষ?

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

সড়কপথে চলতে হবে মেনে সকল আইন আইন ভেঙ্গে চললে পরে করবে পুলিশ ফাইন! সঠিক চলে করতে হবে দুর্ঘটনা রোধ তা না হলে প্রকৃতিও নেবে প্রতিশোধ!

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

এমপি হওয়ার লোভে মানুষ খুন করে ফের মানুষ এরা কি ভাই মানুষ (?) নাকি রক্তচোষা, ফানুস? এমন কা-ে বিচার হলো কাদের খানের ফাঁসি, কর্যকরে শান্তি পাবেন স্বজন ও দেশবাসী।

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

ফুলকপি আর বাঁধা কপি সঙ্গে সবুজ শিম মূলা, পালং, টমেটোতে লাল টুকটুক মীম। মীমের সাথে আরও আছে ছোট্ট খোকাখুখি, সবজি ক্ষেতে আনন্দতে চড়–ইভাতিমুখি।

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

কমে গিয়ে ফের বেড়ে যায় দাম পেঁয়াজ নিয়ে চলছে এমন কাম। দামের অকাম করছে যারা ধরো শাস্তি দিয়ে ফের তবে দেশ গড়ো।

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

সূর্য ডোবার সাথে জেঁকে বসছে বেজায় শীত মাঝ রাতে কার দারুণ আছর ঠকঠকানো গীত। কাঁথা কম্বল লেপ-তোষকের বাড়ছে চাহিদা তাই বসে নেই কারিগরও কাজেই তারা ফিদা।