Saturday, October 31, 2020

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

বিদেশফেরত ভাইটি আমার থাকো কোরেন্টিনে করোনাটা ছড়াতে পারে সচেতনতাবিনে। মাস্ক পরো আর হাত ধুয়ে নাও থাকো নিরাপদে তা না হলো ঘটতে পারে বিপদ পদে পদে।

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

পাপ ছাড়ে না বাপেরেও বলেছিলেন পিসি ধরা খেয়ে নিচ্ছে বিদায় কুড়িগ্রামের ডিসি। চরিত্র নাও শুধরে, আছো যত আকামবাজ পাপের ফাঁদে পড়লে ধরা উল্টে যাবে রাজ।

ছন্দকথা প্রতিদিন

সুলতানা বিবিয়ান রাগে ক্ষোভে হইলো কানা ঘটনাটা সবার জানা কাগজেতে লিখতে মানা। কাগজ-অফিস যাবো না কোনো খবর লিখবো না খবর লিখলে দেখবে খেল্ সুলতানায় দেবে জেল!

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

বিশ্বজুড়ে মহামারী করোনা ভাইরাস বাড়ছে রোগী মরছে মানুষ পড়ছে মাথায় বাজ। সুস্থ থাকতে সচেতনতার কোনো বিকল্প নাই সুরক্ষিত থেকেই সবাই সুস্থ থাকতে চাই।

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

রইজ বাবু ছিলেন নাকি পুরস্কারের লিস্টে কিন্তু কিছু দুর্মুখেরা চড়িল তার পৃষ্ঠে। নানান কথায় বাতিল হলো রইজ বাবুর নাম, বাঁচলো বুঝি স্বাধীনতা পুরস্কারের দাম।

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

হেসেখেলেই জয়টা পেলো তামিম লিটন মুশি টাইগারদের এমন জয়ে আম-জনতা খুশি। জয়টা চাই ধারাবাহিক গোটা দেশের আশা ক্রিকেট তোলে রক্তে নাচন ক্রিকেট ভালবাসা।

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্ক চারদিকে সচেতন তাই থাকতে হবে রোগটি দেবো রুখে। গুজব নিয়েও থাকতে হবে সদাই সচেতন আতঙ্ক না ছড়ায় যাতে আমার আপনজন।

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

বঙ্গবন্ধুর ডাকে সেদিন জাগলো জনতা অস্ত্র হাতে লড়তে হবে ভাঙ্গলো মৌনতা। বীর জনতা সেই সে ডাকে রক্ত দিলো ঢেলে স্বাধীনতা আনলো ঘরে বুকের পাঁজর জ্বেলে।

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

লাগলে খিদে হাপুস হুপুস কইরো না না ধুয়ে হাত কোনকিছু ধইরো না জামাকাপড় না ধুয়ে ভাই পইরো না গামছাখানা না শুকিয়ে লইয়ো না হাঁচি কাশি যেখান সেখান মাইরো...

ছন্দকথা প্রতিদিন – সৈয়দ আহসান কবীর

লাশের মিছিল বিশ্বজুড়ে ‘করোনা’ এক যম দেশে আসার গুজব শুনে ভয়ে গা ছমছম। নানান দেশে করোনা রব বাড়ছে রোগের ভয়, গবেষণা চলছে জোরে করতে হবে জয়।