ইজিবাইক ব্যবসায়ী আলম হত্যা মামলার চার্জশিট, অভিযুক্ত ৭

130
ইজিবাইক ব্যবসায়ী আলম হত্যা মামলার চার্জশিট, অভিযুক্ত ৭

নিজস্ব প্রতিবেদক :
যশোরে ইজিবাইক ব্যবসায়ী আলমগীর হোসেন আলম হত্যা মামলার চার্জশিট দিয়েছে পুলিশ। একইসাথে জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার পিয়ারুজ্জামান পিরুসহ আরও চারজনকে এই চার্জশিটে অব্যাহতির আবেদন জানানো হয়েছে। সাতজনকে অভিযুক্ত করে কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই সালাউদ্দিন খান তদন্ত শেষে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এই চার্জশিট দাখিল করেন।

অভিযুক্ত আসামিরা হলো, যশোর শহরের পুরাতনকসবা কাজীপাড়ার কাঠ মিস্ত্রি শহিদুল ইসলামের ছেলে সোহান হোসেন, ফারুক হোসেনের ছেলে আজিজুর রহমান ওরফে আইজুল, মৃত লোকমান শেখের ছেলে বাবলু শেখ, কাজীপাড়া গোলামপট্টির শেখ রবিউল ইসলাম রবির ছেলে ইমরুল কায়েস রুমন, মৃত বাশার মিয়ার ছেলে আসাদুজ্জামান বাবু ও পুরাতন কসবা ব্রিজের দক্ষিণ পাশে চঞ্চলের বাড়ির ভাড়াটিয়া মৃত শেখ সুলতানের ছেলে শাওন আহম্মেদ।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, ইজিবাইক ব্যবসায়ী আলমগীর হোসেন আলমের ভাই কোরবান আলী পচাকে ২০২১ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে হত্যা করে। ওই হত্যা মামলা প্রত্যাহার করে নেয়ার জন্য আসামিরা নিহতের পরিবারের উপর ভয়ভীতিসহ বিভিন্ন ধরণের চাপ সৃষ্টি করতে থাকে। নিহত পচার পরিবার এই মামলা প্রত্যাহার করতে রাজি না হওয়ায় আসামিরা তাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়।

এ ঘটনার জের ধরে চলতি বছরের ২৪ মার্চ বিকেলে শহরের পুরাতন কসবা গোলামপট্টিতে সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে আহত হন নিহত পচার ভাই ইজিবাইক ব্যবসায়ী আলমগীর হোসেন আলম। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৭ মার্চ ভোরে আলম মারা যান।

এ ঘটনায় নিহতের আরেক ভাই মুরাদ ৭ জনের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। তদন্তকালে আটক আসামিদের দেয়া তথ্য ও সাক্ষীদের বক্তব্যে হত্যার সাথে জড়িত থাকায় ওই ৭ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে এই চার্জশিট দাখিল করেছেন তদন্ত কর্মকর্তা।

হত্যার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার পিয়ারুজ্জামান পিরু, আমিরুল ইসলাম, সোহাগ ও রনি ওরফে কাজী হায়াতুজ্জামান রাজিবের অব্যহতির আবেদন করা হয়েছে। চার্জশিটে অভিযুক্ত আসাদুজ্জামান ও ইকরামুল বিশ্বাসকে পলাতক দেখানো হয়েছে।