যশোর জেলা প্রশাসকের আরও এক নন্দিত উদ্যোগ
কালেক্টরেটে টেরাকোটায় ‘সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড’ 

101
যশোর জেলা প্রশাসকের আরও এক নন্দিত উদ্যোগ কালেক্টরেটে টেরাকোটায় ‘সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড’ 

প্রণব দাস :
মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা বাংলা ও বাঙালির এক শ্রেষ্ঠ অর্জন। আর এ অর্জনের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে যশোর জেলা। মুক্তিকামী মানুষের অদম্য প্রত্যয়ে দেশের মধ্যে প্রথম শত্রুমুক্ত হয় এই জেলা। আর এ মুক্তিযুদ্ধের সাথে জড়িয়ে রয়েছে ‘যশোর রোড’। একান্ন বছর আগে ১৯৭১-এর সেপ্টেম্বর ও যশোর রোড নিয়ে একটি কবিতা লেখা হয়। আমেরিকান কবি অ্যালেন গিন্সবার্গ রচিত কবিতার নাম ‘সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড’ (সেপ্টেম্বরের যশোর রোড)। শোষকের বিরুদ্ধে শোষিতের পক্ষে দৃঢ়প্রত্যয়ী কবিতাটি অসম্ভব জনপ্রিয়- আজ অবধি। কবিতার বিষয় মুক্তিযুদ্ধ, বাংলাদেশের শরণার্থী ও যশোর রোড হলেও সেপ্টেম্বর মাসটিও পেয়ে যায় নতুন মাত্রা।
দীর্ঘ এ কবিতারর শেষ দু’লাইন নিয়ে ‘শত শত মুখ হায় একাত্তর যশোর রোড যে কত কথা বলে,/ এত মরা মুখ আধমরা পায়ে পূর্ব বাংলা কোলকাতা চলে’ দৃশ্যায়নের এমন সত্য স্থিরচিত্র টেরাকোটার মাধ্যমে যশোর কালেক্টরেট ভবনে দ্বিতীয়তলায় উঠার সিঁড়ির মাঝে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে ‘সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড’ শীর্ষক এ দেয়াল চিত্রে। দেয়াল চিত্রে ওই কবিতার শেষ দু’টি লাইন বাংলা এবং ইংরেজিতে লেখা রয়েছে।
শনিবার (১০ সেপ্টেম্বর) এ ম্যুরাল উদ্বোধন করা হয়েছে। উদ্বোধন করেন সমাজ কল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ ও যশোর-৩ (সদর) আসনের এমপি কাজী নাবিল আহমেদ। উপস্থিত ছিলেন সমাজসেবা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. আবু সালেহ মোস্তফা কামাল, খুলনা বিভাগীয় কমিশনার জিল্লুর রহমান চৌধুরী, জেলা প্রশাসক মো. তমিজুল ইসলাম খান, স্থানীয় সরকার বিভাগ যশোরের উপপরিচালক হুসাইন শওকত, জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সুকুমার দাস, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি যশোরের সভাপতি হারুণ অর রশীদ, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মাহমুদ হাসান বুলু, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি দীপংকর দাস রতন, উদীচী যশোরের সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান খান বিপ্লবসহ বিভিন্ন সরকারি সেবা প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
উদ্বোধনের পর অতিথিবৃন্দ আলোকিত যশোর কালেক্টরেট ভবন পরিদর্শন করেন এবং শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত মার্কিন কবি অ্যালেন গিন্সবার্গের সেই কালজয়ী কবিতা অবলম্বনে ‘সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড’ কবিতার উপর নির্মিত গীতিনাট্যচিত্র দেখেন।
কালেক্টরেট ভবনে এ দেয়ালচিত্রের উদ্বোধন উপলক্ষে এদিন সন্ধ্যায় যশোর জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে উপচে পড়া সংস্কৃতিপ্রেমীদের উপস্থিতিতে মঞ্চস্থ হয় শেকড় যশোরের প্রযোজনায় ‘সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড’ গীতিনাট্য। গীতিনাট্যের নির্দেশনায় ছিলেন কামরুজ্জামান তাপু। এতে শেকড় যশোরের শিশু শিল্পীসহ অর্ধশতাধিক নাট্যকর্মী অভিনয় করেন।
গীতিনাট্য দেখার পার প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ বলেন, মুক্তিযুদ্ধের এ সব ইতিহাস নতুন প্রজন্মের সামনে তুলে ধরাটা খুবই জরুরী। এই নাটক দেখে অশ্রু সম্বরণ করা সম্ভব নয়।
এ সময় এমপি নাবিল আহমেদ তার প্রতিক্রিয়ায় জেলা প্রশাসকের এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে বলেন, একাত্তরের শরণার্থীদের অবর্ণনীয় দুর্দশা ও যুদ্ধের তথ্যচিত্র নিয়ে মার্কিন কবি অ্যালেন গিন্সবার্গ রচিত কবিতা ‘সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড’ ইতিহাসের এক অনন্য দলিল। যা গীতিনাট্যের মাধ্যমে ফুটে উঠেছে।
জেলা প্রশাসক মো. তমিজুল ইসলাম খান জানান, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাত ধরে হাজার বছরের ঐতিহ্যময় বাঙালি জাতি পায় একটি মানচিত্র। সে মানচিত্রের নাম বাংলাদেশ। কিন্তু এ অর্জন সহজ ছিল না। পাকিস্তানের ওই নারকীয় হত্যাকাণ্ড সমর্থন তো করেনি কেউই, বরং যার যার অবস্থান থেকে বাংলাদেশের অসহায়, নির্যাতিত মানুষের পাশে এসে দাঁড়ায়। বাংলাদেশের অসহায় মানুষের পক্ষে অবস্থান নেয়া এমনই এক নাম ‘অ্যালেন গিন্সবার্গ’। একান্ন বছর আগে বাংলাদেশ সীমান্ত ঘুরে অসহায় শরণার্থীদের দেখে, হৃদয় দিয়ে তাদের দুঃখ-কষ্ট অনুভব করেছিলেন কবি। আর লিখেছিলেন তার বিখ্যাত কবিতা ‘সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড’। সেই কবিতার অবলম্বনে ঐতিহাসিক ৩৬০ দুয়ারী যশোর কালেক্টরেট ভবনে ঐতিহ্য আর আধুনিকতার অপূর্ব সমন্বয়ে নান্দনিক আলোকসজ্জার পাশাপাশি এ টেরাকোটায় দেয়ালচিত্র স্থাপন করা হল- যার তৈরি করেছেন চারুশিল্পী মিজানুর রহমান লিটন। এর মাধ্যমে মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধে যশোরের অবদান ফুটে উঠেছে।