বঙ্গবন্ধুর প্রতি উজাড় করা ভালবাসা
## শোককে শক্তিতে পরিণত করে সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়

206
বঙ্গবন্ধুর প্রতি উজাড় করা ভালবাসা ## শোককে শক্তিতে পরিণত করে সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়

নিজস্ব প্রতিবেদক :
বঙ্গবন্ধু’র প্রতিকৃতি ফুলে ফুলে ঢেকে দিয়ে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গমাতা ফজিলাতুন নেছা মুজিব ও তাঁর পরিবারকে বিনম্র শ্রদ্ধায় স্মরণ করেছে গোটা জাতির পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত যশোরবাসী।

সোমবার শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে যশোর বকুলতলাস্থ দেশের অন্যতম বৃহৎ ‘বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ম্যুরাল’য়ে ফুলেল শ্রদ্ধাঞ্জলি জানায় তারা।

এছাড়া দিবসটি উপলক্ষে যশোরের বিভিন্ন এলাকায় রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনাসভায় শোককে শক্তিতে পরিণত করে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয়েছে।
এদিন সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সরকারি-আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের কার্যালয়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও বেসরকারি ভবনসমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের পর অর্ধনমিত রাখার মধ্য দিয়ে শোক দিবসের কার্যক্রম শুরু হয়।
সকাল থেকেই পবিত্র কোরআনের বাণীর সুমধুর সুরে প্রতিটা পাড়া-মহল্লায় এক অন্যরকম পরিবেশ সৃষ্টি হয়। এছাড়া কালোব্যাজ ধারণের পাশাপাশি দিনব্যাপী শহরসহ গ্রামাঞ্চলের মোড়ে মোড়ে বঙ্গবন্ধুর রেকর্ডকৃত ভাষণ আর স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের অবিস্মরণীয় সংগীতের মাঝে আলোচনাসভা, দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া ছিল রাস্তার পাশে তাবু টাঙিয়ে খিচুড়ি বিতরণ।
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি পরম শ্রদ্ধা ও ভালবাসায় স্মরণ ও শ্রদ্ধা জানাতে যশোর বকুলতলাস্থ বঙ্গবন্ধু ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে শ্রদ্ধা জানান জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষে সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন ও সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার এমপি, সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদের কেন্দ্রীয় কার্যকরী সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা অ্যাড. রবিউল আলম, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ইউনিট যশোরের সাবেক কমান্ডার এএইচএম মুযহারুল ইসলাম মন্টু, জেলা প্রশাসক মো. তমিজুল ইসলাম খান, যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক আক্তারুজ্জামান, সিভিল সার্জন বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস, যশোর শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান ড. আহসান হাবীব, সরকারি মাইকেল মধুসূদন কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মর্জিনা আক্তার, সদর উপজেলা পরিষদের পক্ষে চেয়ারম্যান মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী, যশোর পৌরসভার সাবেক মেয়র ও জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু, সংবাদপত্র পরিষদের সভাপতি একরাম-উদ-দ্দৌলা, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন ও সম্পাদক এসএম তৌহিদুর রহমান, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি ফারাজি আহমেদ সাঈদ বুলবুল, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি যশোর জেলা শাখার সভাপতি হারুন অর রশীদ, জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সুকুমার দাসসহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি সেবা প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা- কর্মচারী, সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক নেতৃবৃন্দ।
ফুলেল শ্রদ্ধার পর জেলা প্রশাসনের পক্ষে সকাল ১১টায় শিল্পকলা একাডেমিতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। দুপুরে সদর ও শহর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিভিন্ন কলেজে দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। শহরের বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ পৃথক পৃথকভাবে দরিদ্রদের মাঝে খাবার বিতরণ করেছেন। বাদ জোহর যশোরের বিভিন্ন মসজিদে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের শহীদ সদস্যদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়ার আয়োজন করা হয়। এছাড়া, বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি পালন করা হয়।
এদিকে এদিন রাষ্ট্রীয় কর্মসূচির সাথে মিল রেখে জেলা প্রশাসন বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে। সকাল সাড়ে আটটায় কালেক্টরেট চত্বর থেকে শোক পদযাত্রার মাধ্যমে ‘বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ম্যুরাল’য়ে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানানো হয়। এদিন সকাল ১০টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে আয়োজিত শোকসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ। সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মো. তমিজুল ইসলাম খান।
প্রধান অতিথি কাজী নাবিল আহমেদ বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু হঠাৎ করে নেতা হননি, তিনি ছাত্র রাজনীতি, ভাষা আন্দোলন, আওয়ামী মুসলিম লীগের প্রতিষ্ঠাকালিন যুগ্ম সম্পাদক, বার বার কারাবরণ করেন এবং ৬৯ এর গণঅভ্যুত্থানের মধ্যে সমস্ত বাঙালির নেতায় পরিণত হন, এর ফলে ৭০এর নির্বাচনে বাঙালি তার দল আওয়ামী লীগকে নিরঙ্কুশ বিজয় এনে দেন। তিনি ৬দফার দু একটা শর্ত বাদ দিলেই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে পারতেন, কিন্তু বাঙালির মুক্তির জন্য নিজেকে উৎসর্গ করেন।
কিন্তু ’৭৫ এর ১৫ আগস্ট আন্তর্জাতিক চক্রান্তকারীরা জাতির পিতাকে হত্যা করে আমাদের দেশকে নব্য পাকিস্তান বানাতে চেয়েছিল। তাদের সেই দুরাশা পূরণ হয়নি। জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতা গ্রহণের পর আজ দেশ স্বাধীনতার চেতনায় উন্নয়ন করে চলেছেন। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে দেশের স্বার্থে দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধ থেকে ষড়যন্ত্রকারীদের সমস্ত অপচেষ্টা প্রতিহত করতে হবে।
তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বাস্তবায়নে কাজ করছেন। আর মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীরা এখনও বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রগতিকে থামিয়ে দিতে চায়। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি এবং সেকারণে তার স্বপ্নের বাংলা গড়ার জন্য বর্তমান সরকারের পাশে আমাদের থাকতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সাথে থাকতে হবে।
বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনির সিভিল সার্জন বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা একেএম গোলাম আযম, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফরিদ আহমেদ চৌধুরী। আলোচনা করেন সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ইউনিটের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার আফজাল হোসেন দোদুল, জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সুকুমার দাস ও প্রেসক্লাব যশোরের সম্পাদক এসএম তৌহিদুর রহমান। সঞ্চালনা করেন জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা সাধন কুমার দাস ও শিক্ষক আহসান হাবিব পারভেজ। আলোচনা শুরুর আগে জাতির জনকের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে একমিনিট নিরবতা পালন করা হয়। শেষে ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক রচনা ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
এদিকে সকাল থেকেই শ্রদ্ধাঞ্জলি জানাতে যশোরের বিভিন্ন এলাকার সরকারি বেসরকারি রাজনৈতিক-সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ যশোরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নানা প্রস্ততি নেয়। এসব প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন মৌন শোক পদযাত্রা শেষে যশোর বকুলতলাস্থ ‘বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ম্যুরাল’ এ শ্রদ্ধাঞ্জলি জানায়।
এদিকে, সমাজের কথা পত্রিকা দপ্তরে বিভিন্ন সংগঠন ও সংস্থার পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানা গেছে-
আদ্-দ্বীন সকিনা উইমেন্স মেডিকেল কলেজ এবং আদ্-দ্বীন ওয়েলফেয়ার সেন্টার
এদিন ক্যাম্পাসে শোক পদযাত্রা বের করে আদ্-দ্বীন সকিনা উইমেন্স মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ। মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মো. কামাল উদ্দিনের নেতৃত্বে পদযাত্রায় বায়োকেমেস্ট্রি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সহযোগী অধ্যাপক ডা. মারুফা আক্তার, সহযোগী অধ্যাপক ডা. সুষ্মিতা নার্গিস, সহযোগী অধ্যাপক ডা. ইমু ঘোষ, সহকারী অধ্যাপক ডা. আফরোজা সুলতানা, ডা. শামসুন নাহার, আদ্-দ্বীন ওয়েলফেয়ার সেন্টারের পরিচালক মো. ফজলুল হক, জিএম মো. মুক্তার হোসেন, ডিজিএম মো. শহীদুল ইসলাম, ওমর আলী প্রমুখ। ক্যাম্পাসের সামনে থেকে পদযাত্রাটি শুরু হয়ে যশোর-বেনাপোল মহাসড়ক পর্যন্ত গিয়ে আবার ক্যাম্পাসে এসে শেষ হয়। পরে ক্যাম্পাসে নির্মিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।
জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশন
জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তাবৃন্দ সকালে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। সংস্থার ঢাকা জোনের সকল স্টাফ ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের সম্মুখস্থ জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পরে সকাল ৯টায় সংস্থার প্রধান কার্যালয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনাসভা ও শহিদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।
এরপর সংস্থার যশোরের কমিউনিটি স্কুল, আরবপুরে অবস্থিত শিশুস্বর্গ সেল্টারহোমে ও কোটচাঁদপুর উপজেলায় নূরজালাল শিশু আনন্দ নিকেতন প্রকল্পের এতিম শিশু কিশোরদের নিয়ে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও আমাদের স্বাধীনতা বিষয়ে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল, চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতা এবং সকল শিশুদের মাঝে বিশেষ খাবার পরিবেশন করা হয়।
জয়তী সোসাইটি
যশোরের বকুলতলাস্থ বঙ্গবন্ধু ম্যুরালে পুষ্পাঘ্য অর্পণ করেন জয়তী সোসাইটির পক্ষে পরিচালক অর্চনা বিশ্বাস, ম্যানেজার (অর্থ ও প্রশাসন) অসীম কুমার বিশ্বাস, প্রোগ্রাম ম্যানেজার রোকনুজ্জামান, ম্যানেজার ব্যবসাকেন্দ্র হাজেরা খাতুনসহ জয়তী সোসাইটির ৫৪টি সংগঠনের ম্যানেজার ও নেতাকর্মীবৃন্দ।
বিসিএমসি ও বিটিসি
বিসিএমসি প্রকৌশল ও প্রযুক্তি মহাবিদ্যালয় এবং বাংলাদেশে টেকনিক্যাল কলেজের (বিটিসি) উদ্যোগে এদিন শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে ১ম ক্যাম্পাস থেকে শুরু হওয়া মৌন পদযাত্রায় বকুলতলাস্থ বঙ্গবন্ধু ম্যুরালে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হয়।
পরে বিসিএমসি হলরুমে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন অধ্যক্ষ প্রকৌশলী এস এম রেজাউল কবীর। সভাপতিত্ব করেন মেরিন ও মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান আসাদুজ্জামান। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ টেকনিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ মো. আসাদুজ্জামান। আলোচনা করেন বিসিএমসি রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. মোস্তাফিজুর রহমান রাজা, কম্পিউটার বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী মো. ফারুকুজ্জামান, বিটিসির কম্পিউটার বিভাগের লেকচারার প্রকৃতি মজুমদার, বিটিসির ইলেকট্রিক্যাল বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী বুলবুল আহমেদ, বিসিএমসির লেকচারার সাদ্দাম আল রশিদ, লেকচারার নুসরাত জাহান, বিটিসির সিভিল বিভাগের প্রধান ফয়সাল আহমেদ, বিসিএমসির টেক্সটাইল বিভাগের লেকচারার মো. আজম আলী। শিক্ষার্থীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, কম্পিউটার বিভাগের তনিমা তাসমিন তন্নি, কে এম মেয়াদ, সামিয়া নুহ শোভা, রিফাত হুসাইন তালাহা ও মেকানিক্যাল বিভাগের তাওসিফ রহমান। অনুষ্ঠানে আবৃত্তি করেন জাহিদুল ইসলাম যাদু। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সহকারী অধ্যাপক আসাদুুজ্জামান ও জাহিদুল ইসলাম যাদু।
এফপিএবি যশোর
এফপিএবি যশোর শাখার উদ্যোগে পদযাত্রা, বঙ্গবন্ধুর জীবনীর উপর রচনা, কুইজ প্রতিযোগিতা ও বঙ্গবন্ধুর জীবন, দর্শন, ও কর্মের উপর আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন এফপিএবি জেলা কর্মকর্তা মো. আবিদুর রহমান।
গ্রামীণ ব্যাংক, যশোর
গ্রামীণ ব্যাংক, জোনাল অফিস, যশোরে আলোচনাসভা, মিলাদ মাহফিল ও দোয়ার আয়োজন করা হয়। সভাপতিত্ব করেন গ্রামীণ ব্যাংক, যশোর জোনের জোনাল ম্যানেজার মো. মামুনুর রশিদ। আলোচনা করেন জোনাল অডিট অফিসার মো. মোজাহিদুল ইসলাম সেলিম, যশোর এরিয়ার এরিয়া ম্যানেজার মো. হাবিবুর রহমান, জোনাল অফিসের প্রশাসনিক কর্মকর্তা অমল চন্দ্র বৈরাগী ও মনীন্দ্র নাথ মন্ডল প্রমুখ।
ইসলামিক ফাউন্ডেশন যশোর
বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করার পর ইসলামিক ফাউন্ডেশন যশোর জেলা কার্যালয়ে খতমে কোরআন, আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাড. মো. মনিরুল ইসলাম মনির। সভাপতিত্ব করেন জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক বিল¬াল বিন কাশেম। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মহিলা সংস্থা, যশোরের চেয়ারম্যান লাইজু জামান, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর’র উপপরিচালক হুমায়ুন কবির খন্দকার, ভারপ্রাপ্ত সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা এলিন সাঈদ- উর -রহমান, জেলা প্রতিবন্ধী বিষয়ক কর্মকর্তা মুনা আফরিন।
হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট যশোর
ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট যশোরের উদ্যোগে বেজপাড়া পূজামন্দির সমিতি প্রাঙ্গণে আয়োজিত শোকসভা ও প্রার্থনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগ যশোরের উপপরিচালক মো. হুসাইন শওকত। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা পূজা উদযাপন পরিষরদর সভাপতি দীপংকর দাস রতন, কাউন্সিলর প্রদীপ নাথ বাবলু ও বেজপাড়া পূজামন্দির সমিতির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অচিন্ত্য ধর। সভাপতিত্ব করেন হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট যশোরের সহকারী পরিচালক চৈতি মহলদার।
আইইবি যশোর কেন্দ্র
ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটশন, বাংলাদেশ (আইইবি) যশোর কেন্দ্রের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ শেষে সম্মেলনকক্ষে ‘জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শীর্ষক’ আলোচনা সভা এবং বঙ্গবন্ধুসহ সকল শহিদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠান হয়েছে।
এতে সভাপতিত্বে করেন আইইবি যশোর কেন্দ্রের চেয়ারম্যান মো. মোস্তাফিজুর রহমান। উপস্থিত ছিলেন আইইবি যশোর কেন্দ্রের ভাইস-চেয়ারম্যান মো. বেঞ্জুর রহমান, প্রকৌশলী এএসএম হুমায়ুন কবীর, মো. আবুল কালাম আজাদ, শেখ কামাল উদ্দীন, মোহাম্মদ আমানুল্লাহ, মো. খায়রুল আলম, মীর রাব্বুল হুসাইন, খন্দকার আবু হাসান সোহেল, মো. সোহেল রানা, মো. মোক্তারুজ্জামান সরদার, ড. এস.এম. হেলাল উদ্দিন, মো. আলাউদ্দীন, মো. এজাজ মোর্শেদ চৌধুরী, মো. এজাজ মোর্শেদ চৌধুরী, একেএম আনিছুজ্জামান প্রমুখ।
বসুন্দিয়া আওয়ামী লীগ
যশোর সদর উপজেলার বসুন্দিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আলোচনা, দোয়া ও তবারক বিতরণ করা হয়েছে। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন যশোর-৪ আসনের সংসদ সদস্য রনজিত কুমার রায়। সভাপতিত্ব করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অহেদুর রহমান। এছাড়া ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াজুল ইসলাম খান রাসেল, সহসভাপতি রতন কুমার দাস কর্ম, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুল আহসান বাবলু, যুগ্ম সম্পাদক আবুল কাসেম, সাংগঠনিক সম্পাদক মাস্টার হারুন অর রশিদ, আইন বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান স্বপন, প্রেসক্লাব বসুন্দিয়া সভাপতি আবু তাহের, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজানসহ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।
অপরদিকে এলাকার সিঙ্গিয়া হাফেজিয়া দাখিল মাদরাসায় আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে সভাপতিত্ব করেন মাদরাসার সভাপতি এসএম লাবুয়াল হক রিপন।
ব্যুরো বাংলাদেশ
বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্যুরো বাংলাদেশ এদিন সকালে বঙ্গবন্ধু ম্যুরালে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করেন কর্মকর্তাবৃন্দ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক সাইফুল ইসলাম, নিরীক্ষক নুরুজ্জামান, শাখা ব্যবস্থাপক হাসান আলী প্রমুখ। পরে সংস্থার কার্যালয়ে আলোচনাসভা শেষে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
পদক্ষেপ মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্র যশোর
পদক্ষেপ মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্র দুপুরে শহরের ধর্মতলা এলাকায় সংস্থার জোনাল কার্যালয়ে আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন জোনাল ম্যানেজার ও সহকারী পরিচালক আবুল কালাম। অতিথি ছিলেন বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা এসএসএস’র জোনাল ম্যানেজার অলোক সাহা, ব্যুরো বাংলাদেশের জোনাল ম্যানেজার আল আমিন খান, পদক্ষেপ মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্রের প্রশাসনিক কর্মকর্তা রেজাউল করিম প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। পরে দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়।
এর আগে সকালে দিনের শুরুতে শহরের বকুলতলাস্থ বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ম্যুরালে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন সংস্থার জোনাল ম্যানেজার ও সহকারী পরিচালক আবুল কালামসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।