দুই মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে পালক পিতা আটক

53
যশোরে সানু হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি রকি আটক, আদালতে দায় স্বীকার

নিজস্ব প্রতিবেদক :
যশোরে সৎ মেয়েদের ধর্ষণের অভিযোগে পালক পিতা ইসমত সাইদ হৃদয়কে আটক করেছে পুলিশ।
সোমবার (৯ আগস্ট ২০২২) রাতে ঢাকা থেকে পুলিশ আটক করে।
আটক হৃদয় বাগেরহাট সদর উপজেলার সুন্দর ঘোনা গ্রামের ইমন সাইদের ছেলে। তিনি যশোর সদরের বাহাদুরপুর গ্রামের এক নারীকে বিয়ে করে সেখানেই বসবাস করতেন। ওই নারীর আগের পক্ষের দুই মেয়ে রয়েছে।
হৃদয়ের স্ত্রী অভিযোগ, তিনি খুলনায় প্রজেক্ট ফুডে কাজ করতেন। ওই ফুড কোম্পানির অফিস পিয়ন ছিলো ইসমত সাইদ হৃদয়। তার সাথে প্রেম করে বিয়ে হয়। ওই নারীর আগের স্বামীর ঘরে পক্ষের ১৫ ও ১৭ বছরের দুইটি মেয়ে আছে। হৃদয় ও মেয়েদের নিয়ে বাহাদুরপুর বাঁশতলায় একটি বাড়িতে বসবাস বসবাস করেন। হৃদয় ইজিবাইক চালায়। তার অজান্তে দুই মেয়ের প্রতি হৃদয়ের কুনজর পড়ে। ভয়ভীতি দেখিয়ে দুই মেয়েকে বিভিন্ন সময় ধর্ষণ করে। আর বিষয়টি কাউকে না বলার জন্য ধর্ষণের ছবি মোবাইলে তুলে হুমকি দিতো। সর্বশেষ বড় মেয়েকে মোবাইল ফোনে ধারণকরা নগ্ন ছবি দেখিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে ঢাকায় নিয়ে জোর করে বিয়ে করে। সব কিছু জানতে পেরে পুলিশকে জানালে কোতোয়ালি থানা পুলিশ হৃদয়কে আটক ও মেয়েকে উদ্ধার করে যশোরে নিয়ে আসে।
ভুক্তভোগী মেয়েটি অভিযোগ করে বলেছে, সব সময় কি যেন একটা খাইয়ে আমাকে অচেতন করতো। হৃদয় আমার ছোট বোনকেও ধর্ষণ করেছে।
কোতোয়ালি থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ মনিরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, তালবাড়িয়া পুলিশ ক্যাম্পের এসআই মতিয়ার রহমান ঢাকার বাড্ডা থেকে ইসমত সাইদ হৃদয়কে আটক করেছে।
এসআই মতিয়ার রহমান জানান, ভিকটিমকেও উদ্ধার করা হয়েছে এবং আসামির বিরুদ্ধে মামলা হওয়ার পর প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।