২৪ জুলাই অধ্যক্ষ জাহির হাসান মারুফের মৃত্যুবার্ষিকী

1

নিজস্ব প্রতিবেদক :
একজন মানব দরদী, শিক্ষাবিদ ও সমাজসেবী অধ্যক্ষ জাহির হাসান মারুফ। অধ্যক্ষ জাহির হাসান মারুফ এমন একজন ব্যক্তিত্ব; যার নাম আজো ভুলতে পারেনি হাজারো মানুষ। মানুষের বিপদে আপদে সবার আগে তিনি এগিয়ে আসতেন। আজও হৃদয়ের অন্তঃস্থল থেকে তাঁকে স্মরণ করেন সবাই; দোয়া করেন তার জন্য।

আজ ২৪ জুলাই ২০২২  তাঁর ৩৫তম মৃত্যুবার্ষিকী। দেখতে দেখতে অনেক বছর পার হয়ে গেলো। কিন্তু যশোরের শিক্ষাখাতে তার অভাব অপূরণীয়ই রয়ে গেল। দাউদ পাবলিক স্কুল এবং ক্যান্টনমেন্ট কলেজের প্রত্যেকটি কণা আজো তাঁকে খুঁজে ফেরে। মেধাবী শিক্ষাবিদ ও সমাজসেবক হিসেবে আজো তাঁকে মনে রেখেছেন যশোরবাসী। তাঁর মৃত্যুবার্ষিকীতে পারিবারিকভাবে দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

১৯৪২ সালে যশোরের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন জাহির হাসান মারুফ। তার বাবা ডা. লুৎফর রহমান (শান্তি মিয়া)ও ছিলেন স্বনামধন্য চিকিৎসক এবং সমাজসেবক। জাহির হাসান মারুফ যশোর জিলা স্কুল ও এম এম কলেজে লেখাপড়া করেন। এরপর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৬৪ সালে ভূগোল বিষয়ে মাস্টার্স ডিগ্রি লাভ করে রাজশাহী ক্যাডেট কলেজে যোগদান করেন। মহান মুক্তিযুদ্ধের পর ১৯৭৩ সালে তিনি দাউদ পাবলিক স্কুল এবং পরে ক্যান্টনমেন্ট কলেজে দায়িত্ব পালন করেন। যুদ্ধকালীন সময়ে তিনি এবং তাঁর পরিবার মুক্তিযোদ্ধাদের সাহায্য সহযোগিতা করেন। যশোর শহরের কাজীপাড়ার বাড়ি আজও তাঁদের যুদ্ধকালীন স্মৃতি ধরে রেখেছে। তাঁর দুই সহোদর তখন পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে কর্মরত ছিলেন। ১৯৮৩ সালে কলেজ বিভাগ পরিবর্তন হলে সেখানেও তিনি অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সারাজীবন শিক্ষার্থীদের কল্যাণ চিন্তা করে সময় কাটাতেন তিনি; কার কী প্রয়োজন এসব বিষয়ে নজর দিতে পছন্দ করতেন।

মানুষ গড়ার কারিগর সবার প্রিয় জাহির স্যার ১৯৮৭ সালে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজনিত কারণে অসুস্থ হয়ে ঢাকার পিজি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। আজও তাকে ভোলেনি তার পরিবার, আত্মীয়স্বজন, গুণগ্রাহী ও শুভাকাক্সক্ষীরা। তিনি ছিলেন উদার, বিনয়ী, সদা হাস্যজ্জ্বল, সকল শিক্ষক, কর্মচারীদের চোখের মণি। দাউদ পাবলিক স্কুল এবং ক্যান্টনমেন্ট কলেজের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে তাঁর কথা প্রাক্তন শিক্ষার্থীবৃন্দ স্মরণ করে শ্রদ্ধা ভরে। তিনি মিশে আছেন হাজার মানুষের হৃদয়ের মণিকোঠায়। তাঁর সান্নিধ্যে যারা আসতে পেরেছেন তারা আজও তাকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে চোখের পানি ফেলেন। যশোরের সকল মানুষের ভালোবাসার মাঝে বেঁচে থাকবেন প্রিয় শিক্ষক অধ্যক্ষ জাহির হাসান মারুফ।

উল্লেখ্য, তিনি যশোর-৬ আসনের সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদারের শ্বশুর।