যশোরে বুস্টার ক্যাম্পেইনে দেড় লক্ষাধিক টিকা প্রদান 

1

নিজস্ব প্রতিবেদক :
দেশব্যাপী চলা বুস্টার ডোজ দিবসে যশোরে টিকা নিয়েছেন ১লাখ ৫৮ হাজার ৮০৯জন। এদিন প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিয়েছেন আরো তিন হাজার মানুষ। সব মিলিয়ে একদিনে টিকা নিয়েছেন ১লাখ ৬১ হাজার ৯৯৬জন নারী ও পুরুষ।

বুস্টার ডোজ দিবসে সকাল থেকেই উৎসব মুখর এ জেলার বাসিন্দারা। সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বিকাল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত ৩৫১টি কেন্দ্রে টিকা প্রদান করা হয়।

এদিকে সকাল থেকে জেলার প্রতিটি কেন্দ্রে সুশৃঙ্খল পরিবেশে সকল বয়সের মানুষ লাইনে দাড়িয়ে ভ্যাকসিন নিয়েছেন। টিকা প্রদান কার্যক্রম দ্রুত হওয়ায় কেন্দ্রের বাইরে জটলা পরিলক্ষিত হয়নি। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পৌর কমিউনিটি সেন্টার গিয়ে দেখা গেছে টিকা নিতে বিভিন্ন বয়সী মানুষের উপস্থিতি রয়েছে। এখানে প্রতিটা বুথে পাঁচজন দায়িত্ব পালন করতে দেখা গেছে। এদের মধ্যে দুইজন নার্স ও তিনজন করে স্বেচ্ছাসেবক নিয়োজিত রয়েছেন। পুরুষ আর নারীদের আলাদা আলাদা বুথে স্বাস্থ্যকর্মীরা করোনার টিকা গ্রহীতাদের টিকা দিচ্ছেন।

টিকা নিতে আসেন শহরের মিশন পাড়া এলাকার আবুল কালাম ও তার স্ত্রী মেহেরিমা বেগম। তারা জানান, কোনো রকম ভোগান্তি ছাড়াই করোনাভাইরাসের বুস্টার টিকা পেয়েছি। টিকার ব্যবস্থাপনায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করে কালাম বলেন, ১০টা লোক এক জায়গায় হলে কিছুটা গ্যাঞ্জাম হয়! এত সুন্দর পরিবেশে টিকা নিতে পারব, ভাবতে পারিনি।

এদিকে দিলরুবা খাতুন নামে এক কলেজ ছাত্রী জানান, টিকার জন্য আবেদন করেছিলাম কিন্তু এখনো মেসেজ আসেনি। মেসেজ বাদে প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ টিকা দিয়েছি। এখন ৩য় ডোজ বুস্টা টিকা মেসেজ বাদে দিতে হচ্ছে।

সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসের ডা. রেহেনেওয়াজ জানিয়েছেন, জেলার ৯৩টি ইউনিয়নে একটি করে তিনটি বুথ হিসেবে মোট ২৭৯টি ও ৯টি পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি করে মোট জেলায় ৭২টি কেন্দ্রে টিকা কার্যক্রম চলে।

সিভিল সার্জন ডা. বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস বলেন, সব মনুষের সমন্বয়ে ব্যাপক প্রচার প্রচারণার মাধ্যমে জনগণকে উদ্বুদ্ধ করে বুস্টার ডোজ দিবস সুষ্টু ভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এজন্য যশোরবাসীকে সাধুবাদ জানান তিনি। করোনার সংক্রমণ রুখতে সচেতনতা বৃদ্ধি, স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন নিশ্চিতকরণ এবং শতভাগ ভ্যাকসিনেশনের আওতায় ১৮বছর ও তদূর্ধ্ব সকল নাগরিককে তৃতীয় ডোজ বা বুস্টার ডোজ কোভিড ভ্যাকসিন দেওয়া হয়। এদিন জেলায় সর্বমোট ১লাখ ৬১ হাজার ৯৯৬জনকে টিকা দেওয়া হয়। এর মধ্যে প্রথম ডোজ টিকা নিয়েছে ৪৪১জন, দ্বিতীয় ডোজ টিকা নিয়েছে ২ হাজার ৭৪৬জন ।