বিভিন্ন স্থানে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস পালিত 

1

সমাজের কথা ডেস্ক॥ বিভিন্ন স্থানে নানা কর্মসূচিতে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস পালিত হয়েছে। গতকাল দিবসটি উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, আলোচনাসভা, প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়।

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি জানান, পাইকগাছায় মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে রোববার সকালে র‌্যালি ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। র‌্যালি শেষে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান আনোয়ার ইকবাল মন্টু। উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সরদার আলী আহসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শিয়াবুদ্দীন ফিরোজ বুলু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লিপিকা ঢালী, ওসি (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম, অধ্যক্ষ মিহির বরণ মন্ডল, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা পবিত্র কুমার দাস, উপজেলা শিক্ষা অফিসার বিদ্যুৎ রঞ্জন সাহা, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান, ইউআরসি ইন্সট্যাক্টর ঈমান উদ্দীন ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের ব্যবস্থাপক জয়ন্ত কুমার ঘোষ।

বেনাপোল প্রতিনিধি জানান, যশোরের শার্শায় মাদক দ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচার বিরোধী দিবস উদযাপন উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার সকাল ১১ টায় শার্শা উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে উপজেলা প্রশাসন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার নায়ারণ চন্দ্র পাল এর সভাপতিত্বে এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আলেয়া ফেরদৌস, পল¬ী উন্নয়ন কর্মকতা বিল¬াল হোসেন, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা জাহান-ই-গুলশানারাসহ বিজিবি ও বিভিন্ন দপ্তরের প্রশাসনিক কর্মকর্তা কর্মচারীগণ। আলোচনা সভায় বক্তারা মাদক ব্যবহার ও পাচার প্রতিরোধে এক হয়ে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

জানা যায়, জাতিসংঘের আহাবানে গত ৩৪ বছর ধরে মাদক বিরোধী দিবস পালিত হচ্ছে। মাদকের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য ১৯৮৭ সালে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের সভায় ২৬ জুনকে মাদকবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস হিসাবে পালনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। পরের বছর থেকে বিশ্বব্যাপি দিবসটি পালিত হয়ে আসছে। দিবসটি পালন উপলক্ষে নেয়া হয়েছে নানা কর্মসূচি। দেশে মাদক পরিস্থিতি দিন দিন ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার জরিপে বাংলাদেশে মাদকাসক্তের উদ্বেগজনক একটি চিত্র বেরিয়ে এসেছে। জাতিসংঘের জরিপ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশে কমপক্ষে ৬৫ লাখ মানুষ সরাসরি মাদকাসক্ত। এদের মধ্যে ৮৭ ভাগ পুরুষ, ১৩ ভাগ নারী। এক লাখেরও বেশি মানুষ নানাভাবে মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। প্রভাবশালী ব্যক্তি থেকে শুরু করে নারী এবং শিশু-কিশোররাও জড়িত মাদক ব্যবসার সঙ্গে।
বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, প্রতি বছর যে পরিমাণ অবৈধ মাদকদ্রব্য দেশে ঢুকছে তার মাত্র শতকরা ১০ ভাগ উদ্ধার সম্ভব হয়। এ দেশে শতকরা ৬০ ভাগ মাদকাসক্ত মাদকের টাকা জোগাড় করতে গিয়ে জড়িয়ে পড়ে বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে। তাছাড়া, মাদক সংক্রান্ত মামলা নিষ্পত্তিতেও রয়েছে দীর্ঘসূত্রিতা। দেশে বর্তমানে প্রায় অর্ধ লাখ মাদক সংক্রান্ত মামলা ঝুলে আছে।