নির্জন কারাবাসে পাঠানো হল সু চিকে

সমাজের কথা ডেস্ক॥ মিয়ানমারের ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চি’কে গৃহবন্দিত্ব থেকে রাজধানী নিপিধোর নির্জন কারাবাসে পাঠানো হয়েছে।

৭৭ বছর বয়সী নোবেল জয়ী সু চি ২০২১ সালের ফেব্র“য়ারিতে সামরিক অভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পরই গ্রেপ্তার হন। এরপর থেকে রাজধানীর গোপন একটি স্থানে তাকে গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছিল।

দুর্নীতিসহ বেশ কয়েকটি মামলায় সু চি’র বিচার চলছে। এর মধ্যে দু’একটি মামলার রায়ে তার ১১ বছরের কারাদণ্ডও হয়েছে। তবে সুচি তার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগই অস্বীকার করে আসছেন।

মিয়ানমারের সেনা শাসকরা বুধবারই সু চির বিরুদ্ধে চলমান সব আইনি কার্যক্রম আদালতকক্ষ থেকে কারাগারে স্থানান্তরের নির্দেশ দিয়েছে।এবার সু চিকে নির্জন কারাবাসে পাঠানোর কারণে তিনি আরও বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বেন।

আদালত সংশি¬ষ্ট কর্মকর্তারা বিবিসি বার্মিজ-কে বলেছেন, বুধবার সু চিকে কারাগারের ভেতরে আলাদা এবং বিশেষভাবে তৈরি কক্ষে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তার সহকর্মী ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট উইন মিন্টকেও একইভাবে নির্জন কারাবাসে রাখা হয়েছে।

সুচির স্বাস্থ্য ভাল আছে এবং তার দেখভাল করার জন্য তিনজন নারী কারাকর্মী আছেন বলে জানিয়েছেন ওই কর্মকর্তারা।

মিয়ানমারের সামরিক সরকারের কাছ থেকে সংক্ষিপ্ত এক বিবৃতিতে সু চিকে কারাগারে স্থানান্তরের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানানো হয়েছে। মিয়ানমারের অপরাধ আইনানুযায়ী এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে বিবৃতিতে।

সু চিকে কতদিন নির্জন কারাবাসে রাখা হবে তা স্পষ্ট নয়। সু চির সাজাকে ন্যাক্কারজনক আখ্যা দিয়ে তার মুক্তি দাবি করেছে পশ্চিমা দেশগুলো। তবে সামরিক বাহিনী বলছে, সু চিকে একটি স্বাধীন বিচার ব্যবস্থায় তার প্রাপ্য আইনি সুবিধাই দেওয়া হচ্ছে।

শেয়ার