চাকরি দেয়ার নামে অর্থ আত্মসাত: ঢাকা বিমানবন্দর কাস্টমসের কর্মকর্তাসহ তিনজনের নামে যশোরে মামলা

নিজস্ব প্রতিদেক: কাস্টমসে অফিস সহায়ক পদে চাকরি দেয়ার নামে চার লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ঢাকা বিমানবন্দর কাস্টমস অফিসার মিলন হোসেন ও তার পিতা এবং মাকে আসামি করে যশোর আাদলতে একটি মামলা হয়েছে। বুধবার যশোর চাঁচড়া মধ্যপাড়ার পিয়ারুর বাড়ির ভাড়াটিয়া নজমুল হোসেন জয় বাদী হয়ে এ মামলা করেছেন। সিনিয়র জুডিসিয় ম্যাজিস্ট্রেট মঞ্জুরুল ইসলাম অভিযোগে তদন্ত করে পিবিআইকে প্রতিবেদন জমা দেয়ার আদেশ দিয়েছেন।

আসামিরা হলো গাজীপুর শহরের কেনাকাটা গলির মামুনের বাড়ির ভাড়াটিয়া কুদ্দুস শেখ ও তার স্ত্রী ফজিলা বেগম এবং ছেলে বিমানবন্দর কাস্টমসের কর্মকর্তা মিলন হোসেন।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, আসামিরা নজমুল হোসেন জয়ের আত্মীয়। মিলন হোসেন বিমানবন্দর কাস্টমসে কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত আছেন। তিনি কাস্টমসে অফিস সহায়ক পদে জয়কে চাকরি দেয়ার প্রস্তাব দেন। জয় রাজি হয়ে ২০২০ সালের ১১ অক্টোবর বাড়ির সকলের উপস্থিতিতে আসামিদের ৪ লাখ টাকা দেন। এক মাসের মধ্যে চাকরি দিতে ব্যর্থ হলে পরের মাসে সমুদয় টাকা ফের দিবেন বলে অঙ্গীকার করেন। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে জয়কে চাকরি দিতে ব্যর্থ হওয়ায় টাকা ফেরত চান। আসামিরা টাকা ফেরত না দিয়ে ঘোরাতে থাকে। গত ১৩ মে আসামিদের ডেকে সালিসের মাধ্যমে টাকা ফেরত চাইলে তর্ক বিতর্কের একপর্যায়ে আসামিরা কোন টাকা ফেরত দিবেনা বলে জানিয়ে চলে যায়। টাকা আদায়ে ব্যর্থ হয়ে গতকাল বুধবার জয় আদালতে এ মামলা করেছেন।

শেয়ার