পদ্মাসেতু পার হতে কোন বাহনে কত টোল

সমাজের কথা ডেস্ক: আসছে জুনের শেষে দক্ষিণ জনপদের স্বপ্নের পদ্মাসেতু খুলে দেওয়ার প্রস্তুতির মধ্যেই যানবাহনের টোলের হার চ‚ড়ান্ত করেছে সরকার।

মোটরসাইকেল নিয়ে পদ্মা সেতু পার হতে চাইলে টোল দিতে হবে ১০০ টাকা। কার ও জিপের জন্য ৭৫০ টাকা আর পিকআপের জন্য ১২০০ টাকা দিতে হবে। মাইক্রোবাসে লাগবে ১৩০০ টাকা।

বাসের জন্য আসনের ভিত্তিতে তিন ধরনের টোল নির্ধারণ করা হয়েছে। ছোট বাসে (৩১ আসন বা এর কম) ১৪০০ টাকা, মাঝারি বাসে (৩২ আসন বা এর বেশি) ২০০০ টাকা এবং বড় বাসে (৩ এক্সেল) ২৪০০ টাকা টোল দিতে হবে।

পণ্যবাহী বাহনের ক্ষেত্রে ছোট ট্রাক (৫ টন পর্যন্ত) ১৬০০ টাকা, মাঝারি ট্রাক (৫ থেকে ৮ টন) ২১০০ টাকা, মাঝারি ট্রাক (৮ থেকে ১১ টন) ২৮০০ টাকা, ট্রাক (৩ এক্সেল পর্যন্ত) ৫৫০০ টাকা এবং ট্রেইলার (৪ এক্সেল পর্যন্ত) পার হতে ৬০০০ টাকা টোল দিতে হবে।

৪ এক্সেলের বেশি হলে ট্রেইলারে ৬ হাজার টাকার সঙ্গে প্রতি এক্সেলে বাড়তি ১৫০০ টাকা দিতে হবে টোল বাবদ।

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় মঙ্গলবার এক প্রজ্ঞাপনে টোলের এই হার জানিয়ে বলেছে, সেতু খুলে দেওয়ার দিন থেকে এই টোল কার্য্কর হবে।

সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আবুল হাসান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে এই প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।”
৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মা সেতু চালু হলে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ১৯টি জেলার সঙ্গে ঢাকার সরাসরি সড়ক যোগাযোগ স্থাপিত হবে।এডিবির ধারণা অনুযায়ী, শুরুর দিকে প্রতিদিন এই সেতু দিয়ে প্রায় ২৪ হাজার যানবাহন চলাচল করবে।

এখন যেসব যাত্রী বা পণ্যবাহী গাড়ি শিমুলিয়া-বাংলাবাজার এবং পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া হয়ে দক্ষিণের বিভিন্ন গন্তব্যে যায়, সেসব যানবাহন সেতু দিয়ে পদ্মা পার হবে। তাতে আর ফেরি পার হতে হবে না, যাত্রার সময় কমে আসবে।

পদ্মা সেতু চালু হলে পণ্যবাহী যানবাহনের একটা বড় অংশ হবে ভারতের। দেশটির পশ্চিমাংশ থেকে পূর্বাংশে মাল পরিবহন হবে এই পথে।

চার লেইনের এ সেতুর মূল কাজ প্রায় ৯৮ শতাংশ শেষ হয়েছে। সার্বিক কাজের অগ্রগতি ৯৩ দশমিক ৫০ শতাংশ।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, জুন মাসের শেষ দিকে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন হবে। প্রধানমন্ত্রীর যেদিন সম্মতি দেবেন, সেই তারিখেই এ সেতু যানবাহন চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হবে।

শেয়ার