সমাজ সেবা অধিদফতরের ভুয়া নিয়োগপত্র
চাকরির নামে ১৯ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ সরকারি চাকরি দেয়ার নামে সমাজ সেবা অধিদফতরের ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে ১৯ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে আরিফ হোসেন নামে এক প্রতারকের বিরুদ্ধে যশোর আদালতে মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার যশোর সদরের কাশিপুর গ্রামের মোজাহার আলীর ছেলে রুহুল আমিন বাবু বাদী হয়ে এ মামলা করেছেন। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মঞ্জুরুল ইসলাম অভিযোটি গ্রহণ করে আসামির প্রতি সমন জারির আদেশ দিয়েছেন। আসামি আরিফ হোসেন কুমিল্লার বুড়িচং থানার সংগুসেন গ্রামের আনছার আলীর ছেলে।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, কাশিমপুর গ্রামের আলাউদ্দিনের মাধ্যমে রুহুল আমিন জানতে পারে আরিফ হোসেন বিভিন্ন সরকারি দফতরে লোক নিয়োগ দিতে পারে। পরে আলাউদ্দিনের মাধ্যমে আরিফের সাথে যোগাযোগ করে তার ভাই বনি আমিনকে একটি সরকারি চাকরি পাইয়ে দেয়ার কথা বলেন। তিনি তাকে চাকরি দিতে ২০ লাখ টাকা দাবি করেন। চাকরি না হলে আরিফ টাকা ফেতর দিবে বলেও অঙ্গীকার করে। আরিফের কথায় বিশ্বাস স্থাপন করে রুহুল আমিন তার ভাইয়ের চাকরির জন্য প্রথমে ৭ লাখ টাকা ও পরে ২০২১ সালের ৪ নভেম্বর থেকে চলতি বছরের ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত আরিফকে ১৯ লাখ ৭ হাজার টাকা দেয়। আরিফ শর্ত অনুযায়ী তার ভাইকে মাগুরা সমাজ সেবা অধিদফতরের একটি নিয়োগপত্র দেন। এ নিয়োগপত্র নিয়ে বনি আমিন মাগুরা সমাজ সেবা কার্যালয়ে যোগদান করতে যেয়ে জানতে পারেন নিয়োগপত্রটি ভুয়া। আরিফ পরিকল্পিতভাবে প্রতারণা করে টাকা আত্মসাতের জন্য একটি ভুয়া নিয়োগপত্র তৈরী করে তাকে দিয়েছে। পরবর্তীতে নিয়োগপত্রটি ভুয়া বলে জানিয়ে টাকা আরিফের কাছে ফেরত চাইলে দিতে অস্বীকার করায় তিনি আদালতে এ মামলা দিয়েছে।

শেয়ার