যশোর জেলা হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা মাসিক উন্নয়ন কমিটির সভা
সেবা প্রদানে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের আরও আন্তরিক হতে হবে : প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেছেন, যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের সরকারি রাজস্ব আয় বেড়েছে তিনগুণ। তাই সেবার মান বৃদ্ধির জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের আরও আন্তরিক হতে হবে। বৃহস্পতিবার জেলা হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা মাসিক উন্নয়ন কমিটির সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। তিনি আরও বলেন, হাসপাতালে ভর্তি রোগীদের আপনারা সেবা দিচ্ছেন বলে রোগীরা সুস্থ হচ্ছেন। কিন্তু পত্রিকায় দেখা যায় মাঝে মধ্যে রোগীরা বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের দেখা পান না। তাই সেই সকল বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা যদি সেবার মান বাড়ান তবে আগের মত খুলনা বিভাগে সেরা প্রতিষ্ঠান হতে পারবে এই হাসপাতাল।

এ সময় বক্তব্য রাখেন, কমিটির সহসভাপতি ও জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান, যশোর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. মহিদুর রহমান, জেলা পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ার্দ্দার, হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আখতারুজ্জামান, জেলা সিভিল সার্জন ডা. বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. নাজমুস সাদিক রাসেল, যশোর পৌর মেয়রের পক্ষে কমিশনার মোকছিমুল বারী অপু, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, যশোর মেডিকেল কলেজের অর্থপেডিক্স বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. এএইচএম আব্দুর রউফ, ডা. আহসান হাবিব, ডা. আব্দুর রহিম মোড়ল প্রমুখ।

সভায় বক্তারা বলেন, বর্তমানে হাসপাতালে কর্মচারী রয়েছেন ১০২জন, আউটসোর্সিংয়ে কাজ করছে ১৭জন। এই কর্মচারীরা রাজস্ব ও একটি প্রকল্পের মাধ্যমে বেতন পেয়ে থাকেন। কিন্তু ৭৪ জন স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ দিয়েছেন সাবেক কর্মকর্তারা। নিয়োগপ্রাপ্ত এসব স্বেচ্ছাসেবককে তো হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কোনো টাকা প্রদান করেন না। এ স্বেচ্ছাসেবকরা কি ভাবে তাদের সংসার চালায়? তারা হাসপাতালে আগত রোগীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা নিয়ে ভালো সেবার নামে কমিশনের আশায় হাসপাতালের বাইরে ক্লিনিকে রোগী পাঠিয়ে থাকেন এমন বিভিন্ন অভিযোগ পাওয়া যায়। তারা রোগীদের সাথে প্রতারণা করে অর্থ আয় করে থাকে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে গেলে সরকারি আইডি কার্ড প্রদর্শন করলে প্রশাসন প্রমাণ পেলেও ব্যবস্থা নিতে পারেন না। এ বিষয়ে সভা থেকে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানানো হয়।

এদিকে সভা শেষে সকলের বক্তব্যের আলোকে প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য দালাল নির্মূলের ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। একই সাথে হাসপাতালের মধ্যে অ্যাম্বুলেন্স, ইজিবাইক স্ট্যান্ড সরানোর জন্য প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছেন।

শেয়ার