কাউন্সিলর নয়নের নাম ব্যবহার সিডিউল ক্রয়ে বাঁধা এবং চাঁদা দাবির অভিযোগে যুবক আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর জেলা সমাজসেবা অফিসে যশোর পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শেখ সাহেদ হোসেন নয়নের নাম করে সিডিউল ক্রয়ে বাঁধা এবং চাঁদা দাবির অভিযোগে শহিদুল ইসলাম সুজন (৩০) নামে এক যুবককে আটক করেছে যশোর কোতোয়ালি থানা পুলিশ।

গত ১১ মে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শহরের চারখাম্বার মোড় এলাকার সমাজসেবা অধিদফতরের অফিসে এই ঘটনা ঘটে।

এরপর তাকে আটক করে কোতয়ালি থানার এসআই শংকর কুমার বিশ্বাস মামলা করেছেন। মামলায় আটক শহিদুল ইসলাম সুজনসহ অজ্ঞাত আরো ৩/৪ জনকে আসামি করা হয়েছে।
আটক সুজন শহরের ঘোপ সেন্ট্রাল রোডের হাসেম মিয়ার ছেলে।

পুলিশ মামলার এজাহারে উল্লেখ করেছেন, গত ১১ মে চলমান সিডিউল বিক্রয়ের কাজ চলছিল জেলা সমাজসেবা অফিসে। এদিন বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শহিদুল ইসলাম সবুজসহ অজ্ঞাত আসামিরা সেখানে গিয়ে সিডিউল ক্রয়ে বাঁধা দানসহ চাঁদা দাবি করে। এসময় সিডিউল ক্রয়কারীদের বিভিন্ন ধরনের হুমকি প্রদান করে আসামিরা। খবর পেয়ে থানা পুলিশ সেখানে গিয়ে হাতেনাতে শহিদুল ইসলাম সুজনকে আটক করে। কিন্তু পুলিশি উপস্থিতি টের পেয়ে অন্য আসামিরা পালিয়ে যায়।

এসআই শংকর কুমার আরো জানিয়েছেন, আটক সুজন ওই অফিসে গিয়ে সিডিউল ক্রেতাদের নানা ভাবে ভয় দেখায়। বলে ‘আমি কাউন্সিলর নয়নের লোক’। এরপর সিডিউল ক্রেতাদের কাছে চাঁদা দাবি করে। বৃহস্পতিবার তাকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

শেয়ার