জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পাচ্ছেন ৮৫ জন

সমাজের কথা ডেস্ক: ক্রীড়াঙ্গনে গৌরবোজ্জ্বল অবদানের স্বীকৃতি পাচ্ছেন ৮৫ জন ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব। আগামী বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভার্চুয়ালি জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার প্রাপ্তদের পুরস্কৃত করবেন।

ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে সকাল ৯ টা থেকে শুরু হবে অনুষ্ঠান। পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রত্যেকে পাচ্ছেন একটি আঠারো ক্যারেট মানের ২৫ গ্রাম ওজনের সোনার পদক, এক লাখ টাকার একটি চেক এবং একটি সম্মাননাপত্র।

জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সম্মেলন কক্ষে মঙ্গলবার যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেলৃ অনুষ্ঠানের বিস্তারিত তুলে ধরেন। জাতীয় বাছাই কমিটি ৮৫ জনকে জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার প্রদানের সুপারিশ করেছে বলে জানান তিনি।

২০২০ সালে জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পাচ্ছেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ লেফটেন্যান্ট শেখ জামাল (মরণোত্তর), ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় ও সংগঠক; বীর মুক্তিযোদ্ধা আফজালুর রহমান সিনহা (মরণোত্তর), ক্যাটাগরি – সংগঠক (ক্রিকেট); নাজমুল আবেদীন (ফাহিম), ক্যাটাগরি – সংগঠক (ক্রিকেট কোচ); মো. মহসীন, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল); মো. মাহাবুবুল এহছান রানা, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (হকি); গ্র্যান্ডমাস্টার মোল¬া আব্দুল¬াহ আল রাকিব, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (দাবা); বেগম মোছা. নিলুফা ইয়াসমিন, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স) ও আব্দুল কাদের স্বরণ, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ব্যাডমিন্টন – বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী)।

২০১৯ সালে জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পাচ্ছেন, তানভীর মাজহার তান্না, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ফুটবল); মৃত অরুন চন্দ্র চাকমা, ক্যাটাগরি – সংগঠক (অ্যাথলেটিক্স) (মরণোত্তর); লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মো. মইনুল ইসলাম, ক্যাটাগরি – সংগঠক (আরচারি); দিপু রায় চৌধুরী, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ক্রিকেট); কাজী নাবিল আহমেদ, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ফুটবল); ইন্তেখাবুল হামিদ, ক্যাটাগরি – সংগঠক (শ্যুটিং); বেগম মাহফুজা রহমান তানিয়া, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (সাঁতার); বেগম ফারহানা সুলতানা (শীলা), ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (সাইক্লিং); টুটুল কুমার নাগ, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (হকি); মাহবুবুর রব, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ব্যাডমিন্টন) ও বেগম সাদিয়া আক্তার উর্মি, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (টেবিল টনিস – বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী)।

২০১৮ সালে জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পাচ্ছেন, ফরিদা আক্তার বেগম, ক্যাটাগরি – সংগঠক (অ্যাথলেটিক্স); জ্যোৎøা আফরোজ, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স); মো. রফিক উল্যা আখতার (মিলন), ক্যাটাগরি – সংগঠক (অ্যাথলেটিক্স); কাজী আনোয়ার হোসেন, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল); মো. শওকত আলী খান (জাহাঙ্গীর), ক্যাটাগরি – সংগঠক (ফুটবল); মীর রবিউজ্জামান, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (জিমন্যাস্টিকস); মোহাম্মদ আলমগীর আলম, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (হকি); তৈয়েব হাসান সামছুজ্জামান, ক্যাটাগরি – সংগঠক (রেফারী); নিবেদিতা দাস, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (সাঁতার); ও মাহমুদুল ইসলাম রানা, ক্যাটাগরি – সংগঠক (তায়কোয়ানডো)।

২০১৭ সালের জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পাচ্ছেন, শাহরিয়া সুলতানা, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ভারোত্তোলন); আওলাদ হোসেন, ক্যাটাগরি – সংগঠক ( জুডো, কারাতে ও মার্শাল আর্ট); ওয়াসিফ আলী, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (বাস্কেটবল); শেখ বশির আহমেদ (মামুন), ক্যাটাগরি – সংগঠক (জিমন্যাস্টিকস); মো: সেলিম মিয়া, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (সাঁতার); হাজী মো: খোরশেদ আলম, ক্যাটাগরি – সংগঠক (রোইং); আবু ইউসুফ, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল);

(৩৭) এ. টি. এম. শামসুল আলম, ক্যাটাগরি – সংগঠক (টেবিল টেনিস); রহিমা খানম যুথী, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক); আসাদুজ্জামান কোহিনুর, ক্যাটাগরি – সংগঠক (হ্যান্ডবল) ও মাহবুব হারুন, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (হকি)।

২০১৬ সালের জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পাচ্ছেন, মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (সাঁতার); লেঃ কমান্ডার এ কে সরকার (অবঃ), ক্যাটাগরি – সংগঠক (বাস্কেটবল); বেগম সুলতানা পারভীন লাভলী, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স); বীর মুক্তিযোদ্ধা শামীম-আল-মামুন, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ভলিবল); আরিফ খান জয়, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল); খন্দকার রকিবুল ইসলাম, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল); মোহাম্মদ জালাল ইউনুস, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ক্রিকেট); মো: তোফাজ্জল হোসেন, ক্যাটাগরি – সংগঠক (অ্যাথলেটিক্স); কাজল দত্ত, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ভরোত্তোলন); মো: তাবিউর রহমান পালোয়ান, ক্যাটাগরি – সংগঠক (কুস্তি); জেড. আলম, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ফুটবল ) (মরণোত্তর); আবদুর রাজ্জাক (সোনা মিয়া), ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (হকি) (মরণোত্তর) ও কাজী হাবিবুল বাশার, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ক্রিকেট)।

২০১৫ সালের জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পাচ্ছেন, অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ক্যারম); মো: আহমেদুর রহমান, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় ও সংগঠক (জিমন্যাস্টিক্স); আহমেদ সাজ্জাদুল আলম, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ক্রিকেট); খাজা রহমতউল¬াহ, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (হকি) (মরণোত্তর); মাহ্তাবুর রহমান বুলবুল, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় ও সংগঠক (বাস্কেটবল); বেগম ফারহাদ জেসমীন লিটি, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স); বরুন বিকাশ দেওয়ান, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল); রেহানা জামান, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (সাঁতার); মো. জুয়েল রানা, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল); বেগম জেসমিন আক্তার, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ভারোত্তোলন, কারাতে ও তায়কোয়ানডো) ও বেগম শিউলী আক্তার সাথী, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ব্যাডমিন্টন)।

২০১৪ সালের জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পাচ্ছেন, শামসুল বারী, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় ও সংগঠক (হকি) (মরণোত্তর); এনায়েত হোসেন সিরাজ, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ক্রিকেট); ফজলুর রহমান বাবুল, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ফুটবল); সৈয়দ শাহেদ রেজা, ক্যাটাগরি – সংগঠক (হ্যান্ডবল); মো. ইমতিয়াজ সুলতান জনি, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল); মোহাম্মদ এহসান নামিম, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (হকি); বেগম কামরুন নেছা, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স); মো: সামছুল ইসলাম, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (সাঁতার); মিউরেল গোমেজ, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স) ও মো. জোবায়েদুর রহমান রানা, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ব্যাডমিন্টন)।

২০১৩ সালের জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পাচ্ছেন, মুজাফ্ফর হোসেন পল্টু, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় ও সংগঠক (ক্রিকেট); কাজী মাহতাব উদ্দিন আহমেদ, ক্যাটাগরি – সংগঠক (হ্যান্ডবল); উইং কমান্ডার (অব.) মহিউদ্দিন আহমেদ, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ভারোত্তোলন); সামশুল হক চৌধুরী, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ফুটবল); বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. শাহ্জাহান মিজি, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (সাঁতার); রোকেয়া বেগম খুকী, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স); বেগম মুনিরা মোর্শেদ খান (হেলেন), ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (টেবিল টেনিস); ইলিয়াস হোসেন, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল); বেগম জ্যোৎøা আক্তার, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স); ভোলা লাল চৌহান, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (স্কোয়াশ) ও খালেদ মাহমুদ সুজন, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ক্রিকেট)।

শেয়ার