পশ্চিমাদের বিরুদ্ধে ‘সন্ত্রাসের’ অভিযোগ পুতিনের

55

সমাজের কথা ডেস্ক॥ পশ্চিমারা রাশিয়াকে ধ্বংস করে দেওয়ার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেছেন প্রেসিডেন্ট ভ¬াদিমির পুতিন। সেইসঙ্গে রাশিয়াকে বিভক্ত করা এবং রুশ সশস্ত্র বাহিনীর সুনামহানি করার বিদেশি চক্রান্তের বিরুদ্ধে দেশের কৌঁসুলিদের কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ারও দাবি জানিয়েছেন তিনি।

সোমবার রাশিয়ার শীর্ষ কৌসুঁলিদের সঙ্গে এক বৈঠকে পুতিন এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, দেশটির ফেডারেল সিকিউরিটি সার্ভিস (এফএসবি) সোমবার ‘একটি সন্ত্রাসী দলের’ রাশিয়ার একজন বিখ্যাত টেলিভিশন সাংবাদিককে হত্যার চেষ্টা নস্যাৎ করে দিয়েছে।

‘‘আমাদের সাংবাদিকদেরকে হত্যার প্রস্তুতি নিতে তারা সন্ত্রাসের আশ্রয় নিয়েছে,”বলেন পুতিন। তিনি তার বক্তব্যে কোনও সাংবাদিকের নাম বলেননি। তবে রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন ওই সাংবাদিকের নাম ভ¬াদিমির সোলোভিয়েভ বলে জানায়।

রাশিয়ার সবচেয়ে প্রভাবশালী টেলিভিশন ও রেডিও সাংবাদিকদের একজন সোলোভিয়েভ। নিজের টক শো গুলোতে তিনি প্রচুর কথা বলেন। তার অনুষ্ঠানে আসা অতিথিরা সাধারণত ইউক্রেইনকে অসম্মান করে এবং মস্কোর আগ্রাসনের পক্ষে কথা বলেন।

পুতিন তার বক্তব্যের পক্ষে তাৎক্ষণিকভাবে কোনও প্রমাণ উপস্থাপন করেননি। বার্তা সংস্থা রয়টার্সও তার বক্তব্য যাচাই করতে পারেনি। রয়টার্স থেকে সোলোভিয়েভের সঙ্গেও যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু তাকে পাওয়া যায়নি।

পুতিন বলেন, পশ্চিমারা বুঝতে পেরেছে ইউক্রেইন যুদ্ধে রাশিয়াকে হারাতে পারবে না। তারা তাই ভিন্ন পরিকল্পনা নিয়েছে, সেটা হলো রাশিয়াকে ধ্বংস করে দেওয়া।

তিনি বলেন, ‘‘তাদের আরো একটি কর্মকান্ড আমাদের সামনে এসেছে: রাশিয়ার সমাজকে বিভক্ত করে দেওয়া এবং রাশিয়াকে ভেতর থেকে শেষ করে দেয়া। এটা কাজ করছে না।”

রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর বিরুদ্ধে উসকানি দিতে পশ্চিমা গুপ্তচররা বিদেশি সংবাদ মাধ্যম এবং সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম ব্যবহার করছে বলেও অভিযোগ করেন পুতিন।

ভুয়া খবর এবং সংবাদ যা সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে তার বিরুদ্ধে কৌসুঁলিদের দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত বলে মত প্রকাশ করেন পুতিন। তবে এক্ষেত্রেও তিনি তার বক্তব্যের পক্ষে সুনির্দিষ্ট করে কোনও উদাহরণ দেননি।