যশোরে বিভাগীয় আবৃত্তি অনুষ্ঠান

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ ‘উচ্চকণ্ঠে উচ্চারো আজ মানুষ মহীয়ান’ শ্লোগানকে সামনে রেখে যশোরে অনুষ্ঠিত হয়েছে খুলনা বিভাগীয় আবৃত্তি অনুষ্ঠান। মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে আবৃত্তিশিল্পী সংসদ যশোর প্রশাসনের সহযোগিতায় শুক্রবার টাউন হল ময়দানে রওশন আলী মঞ্চে এ অনুষ্ঠান হয়। মোমবাতি প্রজ্বালন করে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বরেণ্য আবৃত্তিশিল্পী ও বাংলাদেশ আবৃত্তিশিল্পী সংসদের আহ্বায়ক জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়। প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান। সভাপতিত্ব করেন অনুষ্ঠান উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক শ্রাবণী সুর। স্বাগত বক্তব্য দেন অনুষ্ঠান উদযাপন পরিষদের সদস্য সচিব সাধন দাস। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন সংবাদপত্র পরিষদের সভাপতি একরাম-উদ-দ্দৌলা, সাধারণ সম্পাদক মবিনুল ইসলাম মবিন, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মাহমুদ হাসান বুলু, জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সুকুমার দাস, পূজা উদযাপন পরিষদ যশোর শাখার সভাপতি দীপংকর দাস রতন, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি যশোর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সাজেদ রহমান বকুল, আবৃত্তিশিল্পী সংসদের যুগ্ম আহ্বায়ক ড. শাহাদাৎ হোসেন নিপু।

উদ্বোধনী পর্ব সঞ্চালনা করেন অনুষ্ঠান উদযাপন পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক ড. সবুজ শামীম আহসান। শুরুতে আবৃত্তি পরিবেশন করে পুনশ্চ যশোরের শিশুশিল্পীবৃন্দ। শ্রাবণী সুরের নির্দেশনায় শোন আহ্বান শীর্ষক আবৃত্তি পরিবেশন করে শিশুশিল্পী দিশা, কুশ, প্রথা, স্বচ্ছ, রোজালো, ভূমি, মেধা ও সকাল। স্বাধীনতা- এই শব্দটি কিভাবে আমাদের হলো সাধন দাসের অডিও আবৃত্তির সাথে সমবেত নৃত্য পরিবেশন করেন নৃত্য বিতানের শিল্পীবৃন্দ। আবৃত্তি করেন খুলনা বিভাগের দশ জেলার আবৃত্তি শিল্পীরা। শেষে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন কবি মাহমুদা রিনি। সঞ্চলানা করেন অনসূয়া ঘোষ ও শুভংকর গুপ্ত।

শেয়ার