যশোরে মাদক মামলার ব্যতিক্রমী রায় ॥ দণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামিকে ২০ শর্তে প্রবেশনে মুক্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ স্বেচ্ছায় দোষ স্বীকার করায় মাদক মামলার দুই আসামিকে এক বছরের কারাদ- দিয়ে প্রবেশনে মুক্তি দিয়েছে আদালত। গতকাল রোববার যুগ্ম জেলা জজ শিমুল কুমার বিশ্বাস এই আদেশ দিয়েছেন।
আসামিরা হলেন, ঝিকরগাছা উপজেলার বেনেয়ালি গ্রামের নাজিম উদ্দিনের স্ত্রী ও বেনাপোল বড় আঁচড়া গ্রামের ভাড়াটিয়া আয়েশা বেগম ও শার্শা উপজেলার টেংরা গ্রামের আব্দুল কাদের বক্সের ছেলে রহিম বক্স। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সংশ্লিষ্ট আদালতের এপিপি এ্যাডভোকেট লতিফা ইয়াসমীন ও ভীমসেন দাস।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ২৬ ডিসেম্বর রাত ৯টার দিকে আসামি আয়েশা বেগম বড়আঁচড়া গ্রামের নিজ ভাড়াটিয়া বাড়ি থেকে বেনাপোল পোর্ট পুলিশের হাতে আটক হয়। এসময় তার ঘর থেকে ১৫ বোতল ফেনসিডিল ও ৪০ টি ফেনসিডিলের খালি বোতল উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় বেনাপোল পোর্ট থানার এসআই শফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলা করেন। গতকাল রোববার আদালত সাজা প্রদান করে প্রবেশনে মুক্তি দেন। তার প্রতিবন্ধী সন্তান রয়েছে সেই সন্তানকে সঠিকভাবে লালনপালন, সাতটি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক বই এবং প্রতিমাসে এলাকার একজন পথশিশুকে আহারসহ নয় শর্তে এক বছরের জন্য প্রবেশনে মুক্তি দেন।
অন্যদিকে, ২০০৮ সালের ৯ আগস্ট বেলা ১টার দিকে যশোর সদর উপজেলার ছোট মেঘলা গ্রাম থেকে ২৪ বোতল ফেনসিডিলসহ রহিম বক্সকে আটক করে ডিবি পুলিশ। এ ঘটনায় এএসআই মোমরেজ কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। গতকাল রোববার এই মামলায় ১১ শর্তে এক বছরের জন্য প্রবেশনে মুক্তি দেয় আদালত।

শর্তগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, পিতা-মাতাকে নিয়মিত দেখাশোনা ও ভরণপোষণ দিতে হবে। লিগ্যাল এইড সেবা সম্পর্কে এলাকার অসহায় মানুষকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। যুদ্ধাহত একজন মুক্তিযোদ্ধাকে নিয়মিত দেখাশোনা করতে হবে। তিন মাস পরপর স্বেচ্ছায় রক্তদান করবেন ও নিজ বাড়ির আঙ্গিনায় বজ্রপাত নিরোধক তিনটি তাল ও দুইটি নারিকেল গাছ লাগাবেন। এসময় প্রবেশন কর্মকর্তা এএনএম সোহরাব হোসেন উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও এই দুই আসামির সৎ ও শান্তিপূর্ণ জীবন যাপন করতে হবে। কোনো প্রকার অপরাধের সাথে জড়িত হওয়া যাবেনা। মাদকের সংস্পর্শে যাওয়া যাবেনা। দেশত্যাগ করতে পারবে না ও ট্রাইবুন্যাল কিংবা আইন প্রয়োগকারি সংস্থা তলব করলে যথা সময়ে সাজা ভোগের জন্য প্রস্তুতি নিয়ে হাজির হতে হবে। আদেশ অমান্য করলে সাজা ভোগ করতে বাধ্য থাকতে হবে।

শেয়ার