নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন দোহাকুলা’র স্বতন্ত্র প্রার্থী অরুণ অধিকারী

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার দোহাকুলা ইউনিয়ন পরিষদে স্বতন্ত্র প্রার্থী অরুণ কুমার অধিকারী নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন। দলের নীতি আদর্শ ধারণ করায় দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে তিনি নৌকার পক্ষে সমর্থন দিয়ে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। গতকাল শনিবার প্রেসক্লাব যশোরে সংবাদ সম্মেলনে এই কথা জানিয়েছেন দোহাকুলা ইউনিয়ন আওয়মী লীগের সভাপতি ও স্বতন্ত্র প্রার্থী অরুন কুমার অধিকারী।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন, উপদেষ্টা আবুল হোসেন খান, সহ-সভাপতি মেহেদী হাসান মিন্টু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মনিরুল ইসলাম মনির, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক শেখ আতিক বাবু, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক লুৎফুল কবির বিজু, বাঘারপাড়ার মাহাবুবুর রহমান মৃদুল, যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, অমিত অধিকারী ও মোজ্জাফর হোসেন প্রমুখ।

যশোর জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি শহিদুল ইসলাম ইসলাম মিলন জানিয়েছেন, ইউপি নির্বাচনে দলের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে যারা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা পাস করলেও তাদের কখনো দলে ফেরত নেয়া হবে না। অরুণ কুমার অধিকারী দলের প্রতি অনুগত হয়ে তার প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।

এদিকে অরুন অধিকারী বলেন, আমি দোহাকুলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দীর্ঘ দিন ধরে সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছি। এবারের ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশি ছিলাম। দল আমাকে মনোনয়ন না দিয়ে আওয়ামী লীগের কোন পদে নেই এমন একজনকে নৌকা প্রতীক দিয়ে মনোনয়ন দিয়েছে। আমি দলের বিরুদ্ধে নয়, তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মী সমর্থকের চাপে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছিলাম। নির্বাচনের আগমুহূর্তে যখন আমি দেখলাম নিজ দলের নেতা-কর্মীরা দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ছে। দলের সিদ্ধান্ত ও নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষ এড়াতে প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নিয়েছি।

শেয়ার