দেবহাটা ও কালিগঞ্জে আ’লীগের ৯ নেতা বহিস্কার

ইউপি নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে শৃঙ্খলা ভঙ্গ

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ॥ আজ (২৮ নভেম্বর) তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জেলার দেবহাটা উপজেলার ৫টি এবং কালিগঞ্জ উপজেলার ১২টি মোট ১৭টি ইউনিয়নের মধ্যে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ৯ প্রার্থীকে সাময়িক বহিস্কারের সুপারিশ করেছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্পাদক। বিগত ২১ নভেম্বর বিদ্রোহী প্রার্থীদের বরাবর এসব পত্র প্রেরণ পূর্বক জেলা ও কেন্দ্রকে অবহিত করা হয়েছে বলে দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

দেবহাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি জানান, বহির্স্কৃতদের তালিকায় নাম এসেছে দেবহাটা সদর ইউনিয়নের নজরুল ইসলাম নামে এক নেতার। তিনি ছিলেন-প্রস্তাবিত উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটির উপদেষ্টা ও দেবহাটা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। এছাড়া রয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক, কুলিয়া ইউনিয়নের বিদ্রোহী প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আসাদুল হক ও বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের প্রাণনাথ দাস।

অপরদিকে, কালিগঞ্জ উপজেলার ১২ ইউনিয়নের মধ্যে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছে ৫জন। তারা হলেন-উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক ছোট ও মনিটরিং কমিটির আহবায়ক কাজী আব্দুর রহমান জানান, দক্ষিণ শ্রীপুরের প্রশান্ত কুমার সরকার, চাম্পাফুল ইউনিয়নের আব্দুল লতিফ মোড়ল, তারালী ইউনিয়নের শফিকুজ্জামান খোকন, ধলবাড়িয়া ইউনিয়নের গাজী শওকাত হোসেন ও ভাড়া শিমলা ইউনিয়নের নাজমুল ইসলাম নাইম। এসব বিদ্রোহীদের বহিস্কার করা হয়েছে। এছাড়া আওয়ামী লীগের নাম ব্যবহার করে অনেকে প্রার্থী হলেও দলের কোন কমিটিতে তাদের নাম না থাকায় বহিস্কার করা সম্ভব হয়নি।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম জানান, কেন্দ্রের নির্দেশ অনুযায়ী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীদের তালিকা করে তাদের সাময়িক বহিস্কারের পত্র প্রেরণের জন্য উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সম্পাদকদের বলা হয়েছে। যথা সময়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে। কিন্তু শুক্রবার রাতে ফোন বন্ধ থাকায় পুনরায় তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি। তবে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএম ফজলুল হক রাতে জানান, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আসাদুল হককে সাময়িক বহিস্কারের ব্যাপারে আমি জানি। এছাড়া অন্যদের বহিস্কারের বিষয়ে আমি অবগত না।

শেয়ার