যশোরে পুনশ্চের তিনদিনব্যাপী গণসঙ্গীত উৎসব আজ শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ ‘ঘোর আঁধারে পথ দেখাবে আগুনের নিশান’ এ প্রতিপাদ্যে আজ থেকে যশোরে শুরু হচ্ছে তিনদিন ব্যাপী গণসঙ্গীত উৎসব। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে এ উৎসব আয়োজন করেছে পুনশ্চ যশোর। টাউন হল ময়দানের শতাব্দী বটমূলে রওশন আলী মঞ্চে বিকেল পাঁচটায় এ উৎসব শুরু হবে। প্রতিদিন বিকেল পাঁচটায় শুরু হয়ে চলবে রাত পর্যন্ত।

উৎসবে ঢাকার খ্যাতনামা তিনটিসহ খুলনা বিভাগের ১৮টি সংগঠনের তিন শতাধিক শিল্পী গণসঙ্গীত, গণমুখী আবৃত্তি ও গণমুখী নৃত্য পরিবেশন করবেন। আজ উৎসবের উদ্বোধনী দিনে পরিবেশনা করবেন বহ্নিশিখা ঢাকা, অংকুর বাগেরহাট, গণসংগীত সমন্বয় পরিষদ সাতক্ষীরা, বেনুকা নড়াইল, ঝিনাইদহ জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, নৃত্যবিতান যশোর, সুরধুনী যশোর ও পুনশ্চ যশোরের শিল্পীবৃন্দ।

বুধবার সকালে উৎসব আয়োজন নিয়ে প্রেসক্লাব যশোরে সংবাদ সম্মেলন করে পুনশ্চ। এতে উৎসব নিয়ে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন জাতীয় গণসঙ্গীত উৎসব পর্ষদের আহ্বায়ক পান্না লাল দে।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, মহান বিজয়ের ৫০ বছর চলছে। বছরটিকে স্মরণীয় করতে দেশব্যাপী সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে বর্ণিল কর্মসূচি গ্রহণ করা হচ্ছে। ‘সাংস্কৃতিক অগ্রযাত্রায় আমরা’ শ্লোগানকে সামনের রেখে গড়ে ওঠা পুনশ্চ যশোরও এ গৌরবের সাক্ষী হতে চায়। আমাদের মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা সংগ্রামের অন্যতম মূল উৎস ছিল গণসঙ্গীত। গণজাগরণে এই সংগীতের ভূমিকা অনস্বীকার্য। অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনই হোক, যে কোন সংগ্রাম, যেকোন সত্য প্রতিষ্ঠা, যেকোন বিজয়ের লক্ষ্যে, যেকোন আন্দোলনের গুরুত্বপূর্ণ অবদান গণসঙ্গীত। বিজয়ের এই মাসে সেই গণসংগীতকে উপজীব্য করে জাতীয় গণসঙ্গীত উৎসব-২০২১ এর আয়োজন। এ উপলক্ষে ‘সুবর্ণঋণ’ নামে একটি স্মারকগ্রন্থও প্রকাশ করা হবে। সাংবাদিক সম্মেলন থেকে এ উৎসব উপভোগ করতে সকলের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন পুনশ্চ যশোরের প্রতিষ্ঠাতা জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সুকুমার দাস, জাতীয় গণসঙ্গীত উৎসব পর্ষদের সহচেয়ারম্যান একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি যশোর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সাজেদ রহমান বকুল, পুনশ্চ যশোরের উপদেষ্টা সাইফুজ্জামান মজু, সহসভাপতি শহিদুল হক বাদল, কোষাধ্যক্ষ অমিত রায় আনন্দ, বিভাগীয় সম্পাদক শায়ন্তনী দেবনাথ, সিঁথি প্রষা দাস, স্বপ্না দেবনাথ, সদস্য সঞ্জয় চক্রবর্ত্তী, অভিজিৎ পাল প্রমুখ।

শেয়ার