যশোর জেনারেল হাসপাতাল সড়ক যানজটমুক্ত ও দালালের দৌরাত্ম্য কমাতে অভিযানের সিদ্ধান্ত

এ্যান্টনি দাস অপু
যশোর শহরের দড়াটানা মোড় থেকে হাসপাতাল মোড় হয়ে ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল পর্যন্ত যানজটমুক্ত করতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে। গত ১৫ নভেম্বর জেলা প্রশাসক ভবনের সভাকক্ষে জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়।

হাসপাতাল মোড়সহ সামনের সড়ক যানজটমুক্ত ও অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে। সেই সাথে দালাল চক্রের উৎপাত এবং দালালদের সহযোগিতায় ফার্মেসিগুলোতে বাড়তি দামে ওষুধ বিক্রয় করা হলে সেখানেও ব্যবস্থা নেবে প্রশাসন।

প্রসঙ্গত, যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল ঘিরে তীব্র যানজটে নাকাল হয়ে পড়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা মুমূর্ষু রোগী ও সাধারণ জনগণ। হাসপাতাল মোড় থেকে জরুরি বিভাগ পর্যন্ত যেতে কখনো কখনো অনেক সময় ব্যয় হয়। এতে হাসপাতালে আসা মুমূর্ষু রোগীর সময়ের অভাবে প্রানহানির আশঙ্কাও রয়েছে। এদিকে আবার হাসপাতালের ২ নম্বর গেট থেকে জরুরি বিভাগ পর্যন্ত রাস্তাটির দুই পাশে নো পার্কিং সাইনবোর্ড থাকলেও সাইনবোর্ডের মাঝখানে মাঝখানে ইজিবাইক পার্কিং করে চালকরা। দ্রুত বড় অঙ্কের ভাড়া পাওয়ার আশায় ইজিবাইক থামিয়ে যাত্রী ডাকাডাকি করে চালকেরা। তবে এমন অবস্থা যেন কারোর চোখেই পড়ে না। গতকাল এ নিয়ে দৈনিক সমাজের কথায় সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশ হলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মধ্যে আলোচনা হতে শোনা যায়। দায়িত্বরতরা ইজিবাইক ও ইঞ্জিন চালিত রিকসা সেখানে না রাখতে কিছুটা তৎপর ছিল। কিন্তু ইজিবাইক ও ইঞ্জিন চালিত রিকসা পার্কিং ঠেকানো যায়নি।

শেয়ার