প্রাথমিকে এবারও বার্ষিক পরীক্ষা হচ্ছে না

সমাজের কথা ডেস্ক॥ করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে এবারও বার্ষিক পরীক্ষা ছাড়াই প্রাথমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের পরের ক্লাসে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে গত ২৬ অক্টোবরের এক সভায় পরীক্ষা না নিয়ে বিকল্প মূল্যায়নের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এটি চূড়ান্ত করে নির্দেশনা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষা কর্মকর্তারা।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন) উত্তম কুমার দাশ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “প্রাথমিকে এবারে বার্ষিক পরীক্ষা হবে না। আমরা এর আগে শিক্ষার্থীদের ওয়ার্কশিট দিয়েছি। হোমওয়ার্ক, অ্যাসাইনমেন্ট, ক্লাসের পারফরমেন্সের মাধ্যমে আমরা প্রতি বিষয়ের মূল্যায়ন করব। প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত এটা হবে।”

এ বিষয়ে নির্দেশনা আসলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলছেন ঢাকার স্কুলগুলোর শিক্ষকরা।

গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক আবু সাঈদ ভুঁইয়া বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আমরা এ বিষয়ে শুনেছি। কিন্তু এখনো আমাদের কাছে এ সংক্রান্ত কোন নোটিস আসেনি।”

মিরপুরের আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নূরে আলম মনে করেন, দীর্ঘদিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় এখন বার্ষিক পরীক্ষা নিলে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের জন্য বাড়তি চাপ হতে পারে।

“তিনি বলেন, “আমরা এ বিষয়ে শুনেছি। প্রাথমিকের বাচ্চাদের এবার এ পরীক্ষা না নিলেই ভালো হবে।”

কোভিড মহামারীর কারণে ২০২০ সালের মার্চ থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় গতবছর প্রাথমিকে কোনো পরীক্ষা ছাড়াই পরবর্তী ক্লাসে গিয়েছিল শিক্ষার্থীরা।

দেড় বছর বন্ধ থাকার পর গত ১২ সেপ্টেম্বর শ্রেণিকক্ষে সরাসরি ক্লাস শুরু হয়। তবে সপ্তাহের প্রতিদিন সব শ্রেণির ক্লাস হচ্ছে না।

বছরের বেশির ভাগ সময় সশরীরে ক্লাস না হওয়ায় সংক্ষিপ্ত সময়ের কারণে এ বছরের প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা না নেওয়ার সিদ্ধান্ত অক্টোবরে জানিয়েছিল প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

শেয়ার