পিইএসএস বিভাগের শিক্ষার্থী প্রসেনজিতের মৃত্যুতে যবিপ্রবি উপাচার্যের শোক

মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান (পিইএসএস) বিভাগের প্রথম বর্ষের মেধাবী শিক্ষার্থী প্রসেনজিত রায় জয়ের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন।
প্রসেনজিতের শিক্ষক ও সহপাঠীরা জানান, গত বুধবার রাতে নীলফামারী ডোমারের একটি নির্মাণাধীন সড়কে ট্রাককে সাইড দিতে গিয়ে প্রসেনজিত মোটরসাইকেল নিয়ে গর্তে পড়ে যান। দ্রুত তাকে নীলফামারী সদর হাসপাতাল নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকের পরামর্শে দ্রুত তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা দেড়টার দিকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রসেনজিত চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ^াস ত্যাগ করেন। তিনি বিশ^বিদ্যালয়ের ২০১৯-২০ সেশনের ও পিইএসএস বিভাগের নবম ব্যাচের শিক্ষার্থী ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার ধর্মপাল ইউনিয়নে। তার অকাল মৃত্যুতে যবিপ্রবির শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
এক শোক বার্তায় অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন বলেন, শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান (পিইএসএস) বিভাগের শিক্ষার্থী প্রসেনজিত রায় জয়ের অকাল মৃত্যু সত্যি বেদনাদায়ক। তার মৃত্যুতে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার হারালো একজন মেধাবী সন্তানকে এবং তার পরিবারেরও যে ক্ষতি হলো তা অপূরণীয়। গত কয়েক মাসে সড়ক দুর্ঘটনা যবিপ্রবির বেশ কয়েক জন মেধাবী শিক্ষার্থীর অকাল প্রয়াণ হয়েছে অথবা মারাত্মক আহত হয়ে তারা চিকিৎসাধীন। সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। তা না হলে সড়কে মৃত্যুর মিছিল ঠেকানো যাবে না। আমি প্রসেনজিতের আত্মার সদ্গতি কামনা করছি। একইসঙ্গে তার পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি। এদিকে প্রসেনিজতের অকাল প্রয়াণে যবিপ্রবির শিক্ষক সমিতি, কর্মকর্তা সমিতি ও কর্মচারী সমিতি গভীর শোক প্রকাশ করেছে। একইসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান বিভাগ পরিবার, যবিপ্রবি ছাত্রলীগ, সাংবাদিক সমিতিসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনও তাঁর অকাল প্রয়াণে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছে। -সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

শেয়ার