যশোর শহরের বিভিন্ন পূজামণ্ডপ ও মন্দির পরিদর্শন ॥  কোনো চক্রান্ত সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে পারবে না : এমপি শাহীন চাকলাদার

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার এমপি বলেছেন, আবহমানকাল থেকেই বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অনন্য দৃষ্টান্ত হিসেবে বিশ্বে পরিচিত। কোনো অপশক্তি এই সম্প্রীতি নষ্ট করতে পারবে না। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে সম্প্রীতির এই বন্ধন আরও সুদৃঢ় হয়েছে। বৃহস্পতিবার যশোর শহরে বিভিন্ন দুর্গাপূজার পূজামণ্ডপ পরিদর্শনকালে উপস্থিত ভক্তদের উদ্দেশে এসব কথা বলেন তিনি। এ সময় তিনি ধর্মবর্ণ নির্বিশেষে দেশ ও জাতির সমৃদ্ধি-শান্তি কামনা করেন।

এমপি শাহীন চাকলাদার আরো বলেন, দুর্গাপূজা বাঙালির মহামিলন ও সম্প্রীতির উৎসব। ধর্ম যার যার উৎসবের আমেজ সবার। এ কারণেই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ বাংলাদেশ। দুর্গাপূজাকে কেন্দ্র করে দু-একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটেছে। কতিপয় ব্যক্তি বা গোষ্ঠী সাম্প্রদায়িক চেতনা ভূলুণ্ঠিত করার মাধ্যমে সরকারের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। কুচক্রীমহল সারাদেশে জাতিগত ও ধর্মীয় বিদ্বেষ সৃষ্টি করে ফায়দা লুটতে চেয়েছিল। কিন্তু সরকার এবং প্রশাসনের কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের ফলে তাদের সেই চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। এই দেশে হিন্দু-মুসলমানসহ সব ধর্মের মানুষ একে অপরের উৎসব অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। ভবিষ্যতেও এ সম্প্রীতির বন্ধন অটুট থাকবে।

পাঁচদিনব্যাপী শারদীয় উৎসবের চতুর্থদিনে গতকাল ছিলো মহানবমী পূজা। এদিন এমপি শাহীন চাকলাদার সকাল থেকে নিজ সংসদীয় এলাকা কেশবপুরে বিভিন্ন পূজামন্দির ও সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। বিকালে যশোরে ফিরে শহরের মাড়োয়াড়ি মন্দিরে প্রতিমা দর্শনে যান। এরপর সিদ্ধেশ্বরী কালি মন্দির, চৌরাস্তা বাণী জুয়েলার্স মন্দির, শহীদ সুধীর ঘোষ পূজা মন্দির পরিদর্শন করেন। সন্ধ্যায় শ্রীধর পুকুরপাড় পূজা কমিটির মণ্ডপ, বেজপাড়া পূজা মন্দির, চারখাম্বা পলাশ যুবসংঘ পূজামণ্ডপ এবং রাতে রামকৃষ্ণ আশ্রম ও পূজামন্দির পরিদর্শন করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক জিয়াউল হাসান হ্যাপী, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক খলিলুর রহমান, আওয়ামী লীগনেতা রেজাউল ইসলাম, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহিত কুমার নাথ, যশোর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান আসাদ, সাধারণ সম্পাদক এস এম মাহমুদ হাসান বিপু, পৌর আওয়ামী লীগনেতা ইউসুফ শাহীদ, জাকির হোসেন রাজীব, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা যুবলীগনেতা শফিকুল ইসলাম জুয়েল, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শেখ শাহজাহান কবির শিপলু, সাবেক সহসভাপতি ও জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগনেতা এস এম নিয়ামত উল্লাহ, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা যুবলীগনেতা রওশন ইকবাল শাহী, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক শিক্ষা ও পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক মেহেদী হাসান রনি, সদর উপজেলা যুব মহিলালীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শেখ সাদিয়া মৌরিন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সালাউদ্দিন কবির পিয়াস, সহসভাপতি ইয়াসিন আরাফাত তরুণ, আবদুর রউফ পিন্টু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান হৃদয়, মাসুদ হাসান কৌশিক, সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস হোসেন রিয়াদ, ফাহমিদ হুদা বিজয়সহ আওয়ামী লীগ ও পূজা উদযাপন কমিটির বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ।

শেয়ার