২৪ হাজার বিঘা জমিতে আবাদের সম্ভাবন ॥ কেশবপুরে জলাবদ্ধ ২৪ বিলের পানি সরতে শুরু করেছে

কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি ॥ কেশবপুরে ২৭ বিলের জলাবদ্ধতা নিরসনে বাস্তবমুখি পদক্ষেপের কারণে ইতিমধ্যে পানি সরতে শুরু করেছে। সুফলাকাটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সুফলাকাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাষ্টার আব্দুস সামাদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ২৭ বিল এলাকার মানুষ আশার আলো দেখা শুরু করেছে। একাজে তাকে সহযোগিতা করছেন পাঁজিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পাঁজিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মুকুল ও উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক আবু সাঈদ লাভলু এবং বিল এলাকার ভুক্তভোগি জনগণ।

এলাকাবাসি সূত্রে জানাগেছে, বর্ষা মৌসুমে কেশবপুর উপজেলা ২৭ বিলে জলাবদ্ধতা দেখা। মানুষ দিশেহারা হয়ে পড়ে। বিলপাড়ের মানুষের দূর্ভোগের কারণে সুফলাকাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাষ্টার আব্দুস সামাদ জলাবদ্ধতা নিরসনে কাজ শুরু করেন। তিনি দেখেন যে ডায়েরখালে ৮ ব্যান্ডে পলি পড়ে ভরাট হয়ে গেছে। ২৭ বিলের পানির স্তর থেকে ভাটার সময় হরি নদীর পানির স্তর ৪/৫ ফুট নিচে থাকে। এ অবস্থায় মাষ্টার আব্দুস সামাদ এলাকাবাসির সহযোগিতায় ডায়েরখালে ৮ ব্যান্ডে পলি অপসরণ করে ২টি কপাট তুলে দিলে প্রচন্ড গতিতে পানি সরতে শুরু করে। যার ফলে ২৭ বিল এলাকার মানুষ আশার আলো দেখছেন। তাদের ধারণা ২৭ বিল এলাকায় শুস্ক ২৪ হাজার বিঘা জমিতে এবার ধান আবাদের সুযোগ তৈরি হবে।

শেয়ার