যশোরে চাকরির নামে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে একটি সরকারি অফিসের সহকারী পদে চাকরির নামে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে আদালতে মামলা হয়েছে। গতকাল সোমবার সদর উপজেলার ডহেরপাড়া মৃত জসিম উদ্দিনের স্ত্রী শাহিদা খাতুন তিনজনের বিরুদ্ধে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এই মামলা করেন।
অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মারুফ আহমেদ তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) নির্দেশ দিয়েছেন। আসামিরা হলো, ডহেরপাড়া গ্রামের মৃত সদর আলী বিশ্বাসের ছেলে রেজাউল ইসলাম, গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলা শহরের হেলাল খানের ছেলে মনির হোসেন ও বাগেরহাট ফকিরহাট উপজেলার খাজুরা গ্রামের নুর মোহাম্মদের জামাই রাজু আহম্মেদ। বাদী শাহেদা খাতুন মামলায় বলেছেন, তার ছেলে জুবায়ের হোসেন একটি সরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরির জন্য আবেদন করেন। এরপর পূর্ব পরিচিত আসামি রেজাউল বাড়িতে এসে বলেন, তার নিকটতম লোক রয়েছে সে চাকরি দিতে পারবে। এসব বলে বাদী কাছে ৮ লাখ টাকা ঘুষ দাবি করে। তাকে বিশ্বাস করে ২০১৮ সালের ১০ মার্চ ২ লাখ, একই বছরের ২২ মার্চ ৬ লাখসহ মোট ৮ লাখ টাকা প্রদান করা হয়। এরপর বাদীর ছেলের মোবাইলে একটি মেসেজ আসে। মেসেজে বলা হয়েছে ওই বছরের ২৩ জুলাই যোগদান করতে হবে। বাদীর ছেলে যোগদানের জন্য গেলে সেখানকার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা মেসেজটি ভুয়া বলে জানান। খবর শুনে হতাশাগ্রস্থ জুবায়ের আসামিদের সাথে যোগাযোগ করলে তারা আগামিতে চাকরি দেবেন বলে জানান। আসামিদের কাছে তারা চাকরি কথা বললে অথবা টাকা ফেরত চাইলে বিভিন্ন তালবাহানা করতে থাকে। একপর্যায়ের চলতি বছরের ১ অক্টোবর বাদীর বাড়িতে আসে এবং মিমাংসার জন্যে শালিসে টাকা দিবে না বলে হুমকি দিয়ে চলে যায়।

শেয়ার