ছেলেদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রথমবার ডিআরএস

সমাজের কথা ডেস্ক॥ সবশেষ আসর যখন হয়েছিল তখন আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত পর্যালোচনা পদ্ধতি বা ডিআরএস টি-টোয়েন্টিতে ছিলই না। স্বাভাবিকভাবেই বিশ্বকাপেও এই পদ্ধতি ব্যবহার করেনি আইসিসি। এরপর থেকে অনেক কিছুই পাল্টেছে, টি-টোয়েন্টিতেও এখন তা নিয়মিত ব্যবহৃত হয়। এর ধারাবাহিকতায় আসন্ন বিশ্বকাপেও প্রথমবারের মতো থাকছে ডিআরএস।

ছেলেদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সবশেষ আসর হয়েছিল ২০১৬ সালে। সেসময় ডিআরএস ব্যবহৃত হতো কেবল টেস্ট ও ওয়ানডে ক্রিকেটে।

আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে ভুলের পরিমাণ কমানোর জন্য আনা পদ্ধতি ডিআরএস ২০১৭ সাল থেকে ব্যবহার করা হচ্ছে আইসিসির বড় টুর্নামেন্টগুলোতে। তাদের টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে সর্বপ্রথম এই পদ্ধতিতে ব্যবহার করা হয় পরের বছর, মেয়েদের বিশ্বকাপে। এবার ছেলেদের আসরেও যুক্ত হচ্ছে ডিআরএস।

গত বছরের জুনে আইসিসি প্রতি ইনিংসে সাদা বলের ক্রিকেটে দুটি ও টেস্ট ক্রিকেটে তিনটি রিভিউর নিয়ম করেছিল। আগামী রোববার শুরু হতে যাওয়া প্রতিযোগিতায়ও থাকছে সেই নিয়ম।

বৃষ্টি বা অন্য কারণে সংক্ষিপ্ত হয়ে পড়া ম্যাচে ফল পাওয়ার ক্ষেত্রে বাড়ানো হয়েছে সর্বনি¤œ ওভারের সংখ্যা। গ্রুপ পর্বে টি-টোয়েন্টির সাধারণ নিয়মের মতোই ডাকওয়ার্থ-লুইস-স্টার্ন পদ্ধতিতে ফল পাওয়ার জন্য দুই দলকেই ব্যাটিং করতে হবে কমপক্ষে ৫ ওভার করে। আর সেমি-ফাইনালের ক্ষেত্রে তা বাড়িয়ে করা হয়েছে ১০ ওভার।

 

শেয়ার