মাগুরায় এক অসহায় পরিবারকে বসত ভিটা থেকে উচ্ছেদের পাঁয়তারা !

শালিখা (মাগুরা) প্রতিনিধি॥ মাগুরার নাওখালী গ্রােেমর গরিব অসহায় হিরণময় সরকার দীর্ঘ ২৭ বছর আগে জমি কিনে বসবাস করলেও তাকে ঐ জমি থেকে উচ্ছেদের পাঁয়তারা করছে কতিপয় ব্যক্তি। ১৯৯৬ সালে কিরণ শিকদারের কাছ থেকে নায্য মূল্যে ১২ শতক জমি ক্রয় করে ঐ জমিতে পুকুর ও ঘর তুলে তিনি বসত করছেন। কিন্তু কিরণ শিকদারের মৃত্যুর পর তার ওয়ারেশসহ কতিপয় ব্যক্তি হিরণময় সরকারকে ঐ জমি থেকে উচ্ছেদের পাঁয়তারা করছে। ভুক্তভোগী হিরণময় সরকার, স্ত্রী কুনিকা রানী, পুত্র ইষান সরকার, বৃদ্ধা মা সোহাগী সরকার ও ভাই বাবুরাম সরকার বলেন নাওখালী মৌজার ৫৭৫ নং বাস্ত দাগে ৩১ শতকের উপর তাদের বসবাস। এই দাগের সাথে ৫৭৭ দাগের ১২ শতাংশ জমি ১৯৯৬ সালে কিরণ শিকদারের কাছ থেকে নায্য মূল্যে ক্রয় করে সেখানে পুকুর কেটে ও ঘর তুলে তারা বসবাস করছেন। আজ কাল করে ঐ জমি লিখে দেয়ার এক পর্যায়ে ২০১২ সালে করণ শিকদার মারা যায়। মৃত্যুর পর হিরণময় সরকার তার লোক জননিয়ে মৃতের বাড়ীতে গিয়ে জমি লিখে দেয়ার ব্যাপারে আলোচনা করেন। এক পর্যায়ে মৃতের মেয়েরা সহ অন্যান্য ওয়ারেশগণ অঙ্গিকারে আবদ্ধ হয় যে জ্ঞাতি ভোজের পর আমরা ঐ ১২ শতাংশ জমি লিখে দেবো। কিন্তু আজ পর্যন্ত জমি লিখে না দিয়ে বরং তারা পার্শ্ববতি লোকের মাধ্যমে পুকুর থেকে মাছ ধরা সহ উচ্ছেদের পাঁয়তারা করছেন। হিরণ্ময় সরকার ইউনিয়ন পরিষদ সহ বিভিন্ন জায়গায় জমি লিখে দেয়ার ব্যাপারে এবং জোর করে উচ্ছেদের বিষয়ে অভিযোগ দিলেও আজ পর্যন্ত কোন সুরাহ হয়নি। এদিকে মৃত কিরণ শিকদারের ওয়ারেশগণ এলাকার কতিপয় লোক জন নিয়ে জমি থেকে তাদের বিতাড়িত করার ষড়যন্ত্র করছে। এমতাবস্থায় তিনি প্রশাসনের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

শেয়ার