শাঁখারীগাতি মহিলা মাদ্রাসার সুপার ও সাবেক সভাপতির নামে মামলা

চাকরি দেয়ার প্রলোভনে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ আয়া পদে চাকরি দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে টাকা আত্মসাতের অভিযোগে যশোর সদরের শাঁখারীগাতি মহিলা দাখিল মাদ্রাসার সুপার ও সাবেক সভাপতিসহ তিনজনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার একই গ্রামের মিজানুর রহমান যশোর জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এই মামলা করেন। বিচারক অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মারুফ আহমেদ তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)কে নির্দেশ দিয়েছেন।

আসামিরা হলো, মাদ্রাসার সুপার এবিএম ফারুক হুসাইন, ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও নরেন্দ্রপুর গ্রামের মৃত নুর মোহাম্মদের ছেলে ম্যানেজিং কমিটির সদস্য নিজাম উদ্দিন।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, শাঁখারীগাতী মহিলা দাখিল মাদ্রাসার পাশে মিজানুর রহমানের বাড়ি। কিছুদিন আগে ওই মাদ্রাসায় আয়া পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হলে আসমিরা তার স্ত্রীকে ওই পদে আবেদন করতে পরামর্শ ও চাকরি পেতে ৬ লাখ ৮০ হাজার টাকা দাবি করেন। আসামিদের প্রস্তাবে রাজি হয়ে ২০২০ সালের ৩০ জুলাই মিজানুর রহমান ও তার স্ত্রীসহ সাক্ষীদের সাথে নিয়ে মাদ্রাসায় গিয়ে আসামিদের ৬ লাখ ৮০ টাকা টাকা দেন। যথারীতি নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নেয়ার পরও তার স্ত্রীকে চাকরি না দিয়ে অন্য একজনকে চাকরি দেন আসামিরা। টাকা ফেরত চাইলে আসামি ফেরত দেয়ার অঙ্গীকার করেন। চলতি বছরের ২০ সেপ্টেম্বর মাদ্রাসায় গিয়ে টাকা ফের চাইলে আসামিরা টাকা ফেরত দিবেনা বলে জানিয়ে দেন। টাকা আদায়ে ব্যর্থ হয়ে তিনি আদালতে এই মামলা করেছেন।

শেয়ার