চেক জালিয়াতির অভিযোগে যশোরে এবার ইভ্যালির এমডি ও সিইও’র নামে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মোহাম্মদ রাসেলের নামে যশোরে এবার চেক জালিয়াতির অভিযোগে মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে যশোর জুডিশিয়াল আমলি আদালত (চৌগাছা অঞ্চলে) এ মামলা করা হয়েছে। মামলার বাদী জেলার চৌগাছা উপজেলার জাহাঙ্গীরপুর গ্রামের শফিকুর রহমানের ছেলে তরফদার মো. মোশাহেদুর রহমান।

মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, ইভ্যালির এমডি পণ্য দেওয়ার কথা বলে টাকা নিয়ে পণ্য না দেওয়ায় পরবর্তীতে ২৫ জুলাই তরফদার মো. মোশাহেদুর রহমানকে ন্যাশনাল ব্যাংকের ১ লাখ ৭৭ হাজার টাকার চেক প্রদান করেন। তিনি চেকটি নগদায়নের জন্য ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড যশোরের চৌগাছা শাখায় জমা দেন। ইভ্যালি ডটকম লিমিটেডের হিসাব নম্বরে পর্যাপ্ত পরিমাণে টাকা না থাকায় ২৭ জুলাই ওই চেক ডিজঅনার করে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। ১২ আগস্ট চেক ডিজঅনারের বিষয়টি ইভ্যালি ডটকম লিমিটেডকে উকিল নোটিশের মাধ্যমে জানানো হয়। উকিল নোটিশ রিসিভ করে পাওনা ১ লাখ ৭৭ হাজার টাকা পরিশোধ না করায় তিনি আদালতে এই মামলা করেছেন। মামলার আইনজীবী এমএম জয়নাল আবেদিন জানান, আদালত ১৩৮/১৪০ ধারা অপরাধ আমলে নিয়ে মামলটি গ্রহণ করে আসামির প্রতি সমন জারি করে। আগামী ৩ নভেম্বর আসামি স্বশরীরে হাজির হওয়ার জন্য নির্দেশ প্রদান করেন। এরআগে ১৮ সেপ্টেম্বর জাহাঙ্গীর আলম চঞ্চল নামে এক ব্যক্তি যশোর কোতোয়ালি মডেল থানায় ইভ্যালির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. রাসেল এবং চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনের নামে মামলা করেন। মামলায় জাহাঙ্গীর অভিযোগ করেন, গত ২৯ মে এক লাখ ৩০ হাজার ১৪০ টাকায় ভারতীয় বাজাজ কোম্পানির একটি পালসার মোটরসাইকেলের অর্ডার করেন তিনি। এরপর কয়েকটি কিস্তিতে পুরো টাকা পরিশোধও করেন। টাকা পরিশোধের ৪৫ কার্যদিবসের মধ্যে পণ্যটি ডেলিভারি দেয়ার কথা ছিল। সাড়ে তিন মাসেও মোটরসাইকেল পাননি তিনি।
উল্লেখ্য, ভুক্তভোগী এক গ্রাহকের মামলায় গত ১৬ সেপ্টেম্বর (বৃহস্পতিবার) বিকালে মোহাম্মদপুরের বাসায় অভিযান পরিচালনা করে স্ত্রীসহ রাসেলকে গ্রেফতার করে র্যাব। এ মামলায় তিনি কারাগারে রয়েছেন।

শেয়ার