জোড়া গোলে সাফে খেলার দাবি কিংসলের

সমাজের কথা ডেস্ক॥ এএফসি কাপের গ্রুপ পর্বে পথচলা থেমে যাওয়ার পর প্রিমিয়ার লিগে ফিরে অবশ্য প্রত্যাশিত জয়ের দেখা পেয়েছে বসুন্ধরা কিংস। নিজেদের বাকি তিন ম্যাচের প্রথমটিতে এলিটা কিংসলে ও রবসন দি সিলভা রবিনিয়োর নৈপুণ্যে সাইফ স্পোর্টিংকে উড়িয়ে দিয়েছে আগেই শিরোপা নিশ্চিত করা দলটি।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার ৩-০ গোলে জিতে কিংস। নাইজেরিয়ান থেকে বাংলাদেশি হয়ে যাওয়া কিংসলে করেন জোড়া গোল। অন্য গোলটি ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড রবিনিয়োর।

কিংসের জার্সিতে আলো ছড়িয়ে বাংলাদেশের হয়ে সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে খেলার দাবি আরও জোরালো করলেন কিংসলে। ৩১ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ডকে সাফে দলের খেলোয়াড় হিসেবে নিবন্ধন করিয়েছে বাংলাদেশ। ফিফা ও এএফসির ছাড়পত্র পেলে তার গায়ে উঠবে লাল-সবুজের জার্সি।

নিয়মিত গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকো, ফরোয়ার্ড রাউল অস্কার বেসেরাকে বাইরে রেখে একাদশ সাজান কিংস কোচ অস্কার ব্রুসন। দ্বাদশ মিনিটে গোলরক্ষক হামিদুর রহমান রিমনের ভুলে গোল হজম করতে বসেছিল দলটি। নিজেদের অর্ধ থেকে ইয়াসিন আরাফাতের লম্বা ক্রস পোস্ট ছেড়ে বেরিয়ে গ্রিপে নিতে চেয়েছিলেন রিমন, কিন্তু পারেননি। তবে সাইফের মারাজ হোসেন ফাঁকা পোস্ট পেয়েও বল পাঠাতে পারেননি জালে।

৩১তম মিনিটে বক্সের খানিকটা বাইরে থেকে রবিনিয়োর দূরপাল্লার শট পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায়। একটু পর মারাজ আরেকটি সুযোগ নষ্ট করেন বাইরে মেরে।

বৃষ্টির কারণে ভারি ও পিচ্ছিল মাঠে কিংস তিনট গোলই করে দ্বিতীয়ার্ধে। ৫৩তম মিনিটে রবিনিয়োর আড়াআড়ি পাস বাঁ পায়ের শটে জালে জড়ান কিংসলে।

কিংসলের হাত ধরেই ৬৩তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে কিংস। জোনাথন ফের্নান্দেসেরে লব এক ডিফেন্ডার বিপদমুক্ত করতে ব্যর্থ হলে পেয়ে যান কিংসলে। গোলরক্ষককে অনায়াসে পরাস্ত করেন তিনি।

সাইফের জালে তৃতীয় গোলেও দায় আছে তাদের রক্ষণের। বক্সের ভেতরে ফের্নান্দেসের আড়াআড়ি ক্রস আটকাতে পারেননি কেউ। ফাঁকায় বল পেয়ে রবিনিয়ো নিখুঁত শটে ব্যবধান আরও বাড়ান। ২০ গোল নিয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় শীর্ষে রবিনিয়ো।

২২ ম্যাচে ৬১ পয়েন্ট কিংসের। আগের লিগ শিরোপা জেতা ব্রুসনের দলের বাকি আছে আর দুই ম্যাচ।

শেয়ার