আশাশুনিতে যৌতুক বাবদ ফাঁকা ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

আশাশুনি (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি ॥ আশাশুনি উপজেলার খাজরা ইউনিয়নে জামাইয়ের বাড়ি বেড়াতে গেলে যৌতুক বাবদ জোর পুর্বক ফাঁকা ষ্ট্যাম্পে জামাই কর্তৃক শ্বশুরকে স্বাক্ষর করিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে ফটিকখালি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। সরেজমিনে গেলে প্রতাপনগর ইউনিয়নের কোলা গ্রামের মৃত আতিয়ার রহমান সানার ছেলে শ্বশুর মিজানুর রহমান সানা জানান গত ১১ সালে জেএসসি পরীক্ষার পর অর্থাৎ এস,এস,সি পরীক্ষার ৩ মাস পুর্বে আমার ভাই আমজাদের মেয়ে হালিমা কে অপহরন করে নিয়ে যায়। এর পর ঐ জামাই মেয়ের সাথে আজও সম্পর্ক নেই বললে চলে। এ অবস্থায় গত ১২ সেপ্টেম্বর ফটিকখালী গ্রামে আরেক জামাই মোহাম্মাদ আলীর বাড়ি বেড়াতে যাওয়ার উদ্দেশে রওনা হই। এদিকে পুর্বের জের ধরে ফটিকখালি গ্রামের মৃত জয়নুদ্দিন গাজীর ছেলে নুর ইসলাম, তার ছেলে হাসান গাজী ,জামাই মাসুম বিল্লাহ ও মেয়ে হালিমা আমাকে একা পেয়ে জামাইয়ের বাড়িতে জোর করে নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে এক লাখ পঞ্চাশ হাজার টাকা যৌতুক টাকা না দিলে নন জুডিশিয়াল ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করতে বলে । উপান্ত না পেয়ে মান সম্মানের ভয়ে স্বাক্ষর করে বাড়ি চলে আসি। এ ব্যাপারে প্রতিপক্ষ জামাই মাসুম বিল্লার সাথে কথা হলে তিনি বলেন যা শুনেছেন তা সত্য । তবে নন জুডিশিয়াল ষ্ট্যাম্পে স¦াক্ষর করার কথা অস্বীকার করে বলেন শুধু মাত্র সাদা কাগজে স্বাক্ষর করে নিয়েছি। কারণ বিয়ের পর থেকে আজও আমার স্ত্রীর কোন সম্পদ শ্বশুর বাড়ি থেকে পাইনি । ওয়ারেশ সুত্রে আমি দাবিদার সেই সুবাদে আমি তাদের কাছে টাকা পাব, আমার টাকা দিলে আমি তাদের স্বাক্ষরিত কাগজ ফেরত দেব বলে তিনি জানান।

শেয়ার