মহেশপুরে আ’লীগের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীর বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগ

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি॥ ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার বাঁশবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী নাজমুল হুদা জিন্টুকে নিয়ে প্রতিপক্ষরা নানা ধরনের বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। তার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্মিত হয়ে প্রতিপক্ষরা এই নোংরা রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েছেন বলে তার অনুসারীরা দাবি করেছেন।

এলাকাবাসী জানান, সস্প্রতি ভৈরবা গ্রামে নাজমুল হুদা জিন্টুর দাদা মফেজদ্দিন বিশ্বাস, করিম বিশ্বাস, দাদি মকিরুন নেছা ভৈরবা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ নির্মাণের জন্য ১০ শতক জমি দান করেন। সেখানেই গড়ে ওঠে বিশাল মিনার দিয়ে তৈরি আল্লাহর পবিত্র ঘরটি। পরে ভৈরবা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সৌন্দর্য বাড়াতে নাজমুল হুদা জিন্টুর স্বজনরা আরো ১০ শতক জমি দান করেন।

প্রতিবেশী সাগর ও শরিফুল ইসলাম জানান, মসজিদ সংলগ্ন নাজমুল হুদা জিন্টুদের ধানের গোলাসহ অনেক জমি পরে রয়েছে। গত কয়েকদিন পুর্বে নাজমুল হুদা জিন্টুর স্বজনরা তাদের জমি ঘিরে ফলের গাছ রোপণ করেন। কিন্তু প্রতিপক্ষের কিছু ব্যক্তি এলাকায় ছড়িয়েছে নাজমুল হুদা জিন্টু কাটা তারের ব্যাড়া দিয়ে মসজিদ ঘিরে রেখেছে। রাজনৈতিক ভাবে ঘায়েল করতে না পেরে তারা এখন অপ-প্রচার শুরু করেছে।

ভৈরবা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খাদেম হাসানুর রহমান কাদের জানান, মসজিদটি রাস্তা সংলগ্ন, তাই মসজিদ ঘেরার প্রশ্নই আসে না। তাছাড়া মসজিদের পেছনে নাজমুল হুদা জিন্টুদের ৬ থেকে ৭ বিঘা জমি রয়েছে। তারা যদি তাদের জমি ঘিরে ফলের গাছ রোপণ করে তাহলে কেউ কি ঠেকাতে পারে। এটা মানুষের মনে বিভ্রান্তি ছড়ানো ছাড়া আর কিছুই না।

ভৈরবা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম আব্দুল গাফফার প্রশ্ন রেখে বলেন, যারা আল্লাহর ঘর নির্মাণ করার জন্য জমি দান করতে পারে তারা কি কখনও সেই ঘর ঘিরতে পারে?

আমাদের মসজিদের সকল যাতায়াতের রাস্তা খোলা আছে। কোন রাস্তা ঘেরা হয়নি। তাদের ধানের গোলাসহ যে জমিটা মসজিদের পিছনে আছে তারা সেখানে ঘিরে গাছ রোপণ করছে। তাদের জমি ঘেরার সাথে মসজিদের কোন সম্পর্ক নেই।

শেয়ার