কোটি টাকা মানহানির অভিযোগে মামলা করলেন কেশবপুরের মেয়র

 গ্রামের কাগজ সম্পাদককে আসামি করায় নিন্দা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ দৈনিক গ্রামের কাগজ সম্পাদকসহ দুইজনের বিরুদ্ধে কোটি টাকা মানহানির অভিযোগে আদালতে মামলা হয়েছে। কেশবপুরের পৌরসভা মেয়র রফিকুল ইসলাম গতকাল বুধবার যশোর জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এই মামলা করেন। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট গৌতম মল্লিক মামলাটি তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) নির্দেশ দিয়েছেন। অভিযুক্তরা হলেন, গ্রামের কাগজ সম্পাদক মবিনুল ইসলাম মবিন ও কেশবপুরের বাসিন্দা মফিদুল ইসলাম।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, রফিকুল ইসলাম নৌকা প্রতীক নিয়ে কেশবপুর পৌরসভায় দুইবার মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। পৌরবাসীর জীবনমান উন্নয়নে তিনি নিরালসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। এতে ঈর্শ্বান্বিত হয়ে আসামি মফিদুল ইসলাম মেয়রের সম্মানহানির জন্য নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়। তার ধারাবাহিকতায় আসামি মফিদুল ইসলাম মিথ্যা তথ্য দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন। সেই সংবাদ গ্রামের কাগজে প্রকাশ করে মেয়রের সম্মানহানি করা হয়েছে। যা মেয়র নিজেসহ অন্যরা দেখে বিস্মিত হয়েছেন। এতে মেয়রের এক কোটি টাকার সম্মানহানি হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেছেন।

এদিকে, দৈনিক গ্রামের কাগজের সম্পাদক মবিনুল ইসলাম মবিনের বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা ও হয়রাণিমূলক মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন প্রেসক্লাব যশোরের নেতৃবৃন্দ। ক্লাবের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন ও সম্পাদক আহসান কবীর অবিলম্বে গ্রামের কাগজের সম্পাদকের বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে বলেছেন, মেয়র কর্তৃক সংবাদপত্রের বিরুদ্ধে এই ধরনের মামলা স্বাধীন সাংবাদিকতার অন্তরায়। নেতৃদ্বয় এই ধরনের ঘৃণিত কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকার জন্য পৌর মেয়রের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

অন্যদিকে, মামলা করায় নিন্দা জানিয়েছেন যশোর সংবাদপত্র পরিষদের নেতৃবৃন্দ। এক বিবৃতিতে সংগঠনের সভাপতি একরাম-উদ-দ্দৌলা ও সহসভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন অবিলম্বে ভিত্তিহীন অভিযোগে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন।

শেয়ার