চাকা ব্লাস্ট, বাঘারপাড়ায় যাত্রীবাহী বাস উল্টে চালক নিহত, আহত ১০

বাঘারপাড়া (যশোর) প্রতিনিধি॥ যশোরের বাঘারপাড়ায় চাকা ব্লাস্ট হয়ে যাত্রীবাহী বাস উল্টে চালক নিহত ও অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। সোমবার যশোর-নড়াইল সড়কের দাঁতপুর নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত বাস চালক রুস্তম আলী (৫২) বাঘারপাড়া উপজেলার বহরমপুর গ্রামের সোহরাব মোল্যার ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, সোমবার সকালে এস এ ট্রাভেলসের একটি যাত্রীবাহী বাস যশোর- নড়াইল মহাসড়ক দিয়ে নড়াইলে যাচ্ছিল। সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বাসটি দাঁতপুর এলাকায় পৌঁছায়। এ সময় বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কের পাশের একটি মেহগনি গাছের সাথে ধাক্কা দিয়ে মহাসড়কের ওপর উল্টে যায়। এতে চালক রুস্তম মোল্যা এবং কয়েকজন যাত্রী আহত হন। গুরুতর আহত রুস্তম মোল্যা যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। দুপুর ১২টা ৪৫ মিনিটে সেখানে তিনি মারা যান। আহত আরও চারজনকে যশোর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এরা হলেন, নাফিস ইকবাল, রাশেদ, নাইমা ও মারিয়া। এছাড়া সাইফুর রহমান (৪৫), রুহুল আমিন (৪২), আবু বক্কর (৪০) এবং মো. জামালকে (৫৫) বাঘারপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

তুলারামপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নীতি বিকাশ দত্ত বলেন, নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মেহগনি গাছের সাথে যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় বাসচালক রুস্তম মোল্যা নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন বাসযাত্রী। এ ব্যাপারে মামলা প্রক্রিয়াধীন।

নিহত বাস চালক রুস্তম আলীর ভাই জয়নাল আবেদিন জানান, রুস্তম আলী সকালে বাসটিতে যাত্রী নিয়ে নড়াইলের দিকে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে দাঁতপুর এলাকায় বাসের একটি চাকা ব্লাস্ট হয়ে যায়। এ সময় গাড়ি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে যশোর হাসপাতাল ও বাঘারপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠায়। যশোর হাসপাতালে আনার পর চিকিৎসকরা রুস্তম আলীকে মৃত ঘোষণা করেন।

বাঘারপাড়া থানার উপ-পরিদর্শক দাস কিশোর পাল জানান, দুর্ঘটনায় চালক নিহত ও অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে যশোর হাসপাতালে চারজন ও বাঘারপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চারজনকে ভর্তি করা হয়েছে। দু’একজন প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

শেয়ার