যশোরে রেলগেট পুরাতন বাসস্ট্যান্ডে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাতবার্ষিকীর আলোচনা
বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচারের পথরুদ্ধ করে জিয়া : এমপি শাহীন চাকলাদার

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমপি শাহীন চাকলাদার বলেছেন, ৭৫ পরবর্তী বাংলাদেশকে পাকিস্তান বানাতে চেয়েছিলেন জিয়াউর রহমান। বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচারের পথরুদ্ধ করে, খুনিদের দেশে-বিদেশে পুরস্কৃত করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকেই ধ্বংস করতে চেয়েছিল। ৭৫ পরবর্তী বাংলাদেশ ছিল অন্ধকারাচ্ছন্ন, যার পুরোটা পাকিস্তানের আদলে সাজাতে চেয়েছিল জেনারেল জিয়া। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা ১৯৮১ সালে যদি দেশে ফিরে না আসতেন তাহলে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসত না। আর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় না এলে কোনোদিন ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের বিচার হতো না। যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের মাধ্যমে জাতি কলঙ্কমুক্ত হতো না। বৃহস্পতিবার বিকালে যশোর রেলগেট পুরাতন বাসস্ট্যান্ডে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। যশোর পৌর আওয়ামী লীগের ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ড শাখা ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে আলোচনা ও খাবার বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এর আগে, আলোচনা সভায় শাহীন চাকলাদারের উপস্থিতির খবরে দুপুর থেকে ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের বিভিন্ন মহল্লা থেকে নেতৃবৃন্দ মিছিল নিয়ে আসতে থাকেন। এছাড়া দিনভর শোক দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর সেই কালজয়ী ভাষণ প্রচারের পাশাপাশি প্রচার করা হয় দেশাত্মবোধক গান ও কোরআন তেলাওয়াত।

যশোর পৌর ৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসান ইমাম বাবলু’র সভাপতিত্বে এমপি শাহীন চাকলাদার আরো বলেন, ৭৫ পরবর্তী সরকারগুলো ধারাবাহিকভাবে স্বাধীনতাবিরোধী সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীকে বিভিন্নভাবে পৃষ্ঠপোষকতা দিয়ে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় প্রতিষ্ঠিত করেছিল। পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা রাষ্ট্র ক্ষমতায় এসে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছেন। বিচারের রায় কার্যকর করে তাদের স্বপ্ন চুর্ণ করেছেন। এই সম্প্রীতির বাংলাদেশে আবার সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে চাইলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সেই লক্ষ্যে আমাদের আরো ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ঐক্যবদ্ধ হয়ে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।

পৌর আওয়ামী লীগনেতা জাহাঙ্গীর আলম জানু ও গোলাম রব্বানির পরিচালনায় আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম মাহমুদ হাসান বিপু, পৌর ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলমগীর কবির সুমন, পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক এস এম ইউসুফ শাহিদ, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি ও জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগনেতা এস এম নিয়ামত উল্লাহ, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা যুবলীগনেতা রওশন ইকবাল শাহী, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সালাউদ্দিন কবির পিয়াস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, যশোর পৌর ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মেহেদী হাসান রনি।
আলোচনা সভা ও খাবার বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক জিয়াউল হাসান হ্যাপী, জেলা আওয়ামী লীগনেতা রেজাউল ইসলাম, সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জ্যোৎস্না আরা মিলি, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগনেত্রী মাজেদা পারভীন, রেহেনা আক্তার, যশোর পৌর আওয়ামী লীগনেতা কাজী শহিদুল হক শাহীন, আজিজুল হক, জিল্লুর রহমান মানিক, কামরুজ্জামান মামুন, মেজবাহউদ্দিন, ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শেখ শাহজাহান কবির শিপলু, সদর উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক অশোক বোস, সদর উপজেলা যুব মহিলালীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শেখ সাদিয়া মৌরিন, জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি ইয়াসিন আরাফাত তরুণ, আবদুর রউফ পিন্টু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান হৃদয়, মাসুদ হাসান কৌশিক, সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস হোসেন রিয়াদ, ৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুর ইসলাম, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগনেতা আসলাম সরদার, আবু তালেবসহ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ।

এদিকে, এদিন রাতে যশোর পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের খড়কি কারবালা এলাকায় সাবেক ছাত্রলীগের সহসভাপতি হাফিজুর রহমান হাফেজ ও যুবলীগনেতা মোকছেদুর রহমান ভুট্টোর উদ্যোগে আলোচনা সভা ও খাবার বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমপি শাহীন চাকলাদার। অনুষ্ঠানে জেলা আওয়ামী লীগ, পৌর আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার