এক বছর ‘বাড়তে পারে’ ডমিঙ্গোর মেয়াদ

সমাজের কথা ডেস্ক॥ রাসেল ডমিঙ্গোর নড়বড়ে জায়গা কিছুটা থিতু হয়েছে বাংলাদেশের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সে। প্রধান কোচ হিসেবে তার দায়িত্বের মেয়াদ তাই বাড়ানোর কথা ভাবছে বিসিবি। আগামী বছরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত তাকে দেখা যেতে পারে বাংলাদেশের কোচের দায়িত্বে।

২০১৯ সালের অগাস্টে বাংলাদেশের প্রধান কোচের দায়িত্ব দেওয়া হয় ডমিঙ্গোকে। তখন তার সঙ্গে চুক্তি ছিল দুই বছরের। সেই হিসেবে এই মাসেই তার মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা। তবে আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত তার সঙ্গে চুক্তি আগেই বাড়িয়েছে বিসিবি।

অবশ্য এই বিশ্বকাপ শেষেও তিনি থাকতে পারেন, সেটির ইঙ্গিত রোববার দিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। জাতীয় শোক দিবসে বিসিবির আয়োজনে দোয়া মাহফিলের পর সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বিসিবি প্রধান জানালেন প্রধান কোচকে নিয়ে বোর্ডের ভাবনা।

“এটা নিয়ে আসলে ফাইনাল কোনো সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি। উনার মেয়াদ এই বিশ্বকাপ পর্যন্ত আছে, কাজেই এটা তো আছেই, এটা নিয়ে কোনো সমস্যা নেই। পরে এটা বাড়ানোর সম্ভাবনাই সবচেয়ে বেশি। কিন্তু এখনও পর্যন্ত এই সিদ্ধান্তটা আমরা তাকেও জানাইনি বা আমরা নিজেদের মধ্যেও আলোচনা করিনি। কথা বলেছি কয়েক জনের সঙ্গে। আরও কয়েকজনের সঙ্গে বলতে হবে। কথা বলে ফাইনাল সিদ্ধান্ত নেব।”

“আমরা এখন এক বছরের জন্য চিন্তা-ভাবনা করছি (বাড়ানোর)। সামনে দুটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আছে, আপাতত এই দুটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপই আমাদের মাথায় আছে। তারপর সবার সঙ্গে কথা বললে আরও বুঝতে পারব।”

ডমিঙ্গোর কোচিংয়ে প্রথম দেড় বছরে বাংলাদেশের পারফরম্যান্সে দৃশ্যমান উন্নতি খুব একটা ছিল না। মাঠের ফলাফলও ছিল না ভালো। তবে সবশেষ তিনটি সিরিজে দল ধারাবাহিক পারফরম্যান্স করেছে। গত মে মাসে দেশের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ জয়ের পর জুলাইয়ে জিম্বাবুয়ে সফরে তিন সংস্করণেই জয় নিয়ে ফেরে বাংলাদেশ। এরপর এই মাসে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে জয় আসে ৪-১ ব্যবধানে।
গত মে মাসেই অবশ্য বিসিবি সভাপতি বলেছিলেন, মহামারীকালে প্রধান কোচ পাওয়া কঠিন বলে ডমিঙ্গোকেই দায়িত্বে রেখে দেওয়ার সম্ভাবনা বেশি।
আগামী বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হবে অস্ট্রেলিয়ায়, অক্টোবর-নভেম্বর মাসেই।

শেয়ার