যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে চোরের উপদ্রব

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে চোরের উপদ্রব বৃদ্ধি পেয়েছে। গত এক সপ্তাহ ধরে হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডের রোগীর ওষুধ, টাকা, হাসপাতালের পুরাতন গ্রিলসহ বিভিন্ন মালামাল চুরির ঘটনা ঘটেছে। বুধবারও হাসপাতালের লেবার ওয়ার্ড, অপারেশন থিয়েটার, তত্ত্বাবধায়কের পাশের কক্ষের এসির পিতলের কমপ্রেসারের পাইপ চুরির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনা কোতোয়ালি পুলিশের কাছে অভিযোগ দেওয়া হয়েছে।

হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আরিফ আহম্মেদ জানান, গত এক সপ্তাহ থেকে হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডের রোগীর ওষুধ, টাকা চুরির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এছাড়া হাসপাতালে নির্মাণ কাজ চলমান থাকায় কিছু লোহার জিনিসপত্র বাইরে ছিল। ওই সকল জিনিস ঈদের ছুটিতে চুরি হয়েছে। সর্বশেষ বুধবার সকালে জানা গেছে হাসপাতালের লেবার ওয়ার্ড ও তত্ত্বাবধায়কের পাশের রুমে সাতটি এসির পিতলের কমপ্রেসারের পাইপ চুরির হয়ে যায়। পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের নির্দেশে ওয়ার্ড মাস্টার একটি অভিযোগ থানায় দিয়েছেন।

তবে একটি সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে টিকা কার্যক্রম পরিচালনা কালে হাসপাতালের ভেতরে স্বেচ্ছাসেবক পরিচয়ে বহিরাগত লোকজন ও কতিপয় দালালরা দিন-রাত হাসপাতালে অবস্থান করেছে। বহিরাগত লোকজনের আনাগোনা বৃদ্ধি পাওয়ায় চুরির ঘটনা ঘটছে। হাসপাতালে কর্মরত এসআই আব্দুস শহীদ জানান, গত রাতে হাসপাতালের চুরির ঘটনা ঘটেছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত হচ্ছে।

এ ব্যাপারে হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আখতারুজ্জামান জানিয়েছে, চুরির ঘটনা জানার পরে পুলিশকে জানানো হয়েছে। রাতে হাসপাতালের নাইট গার্ডদের সাথে পুলিশও এখন থেকে ডিউটি করবেন। এছাড়া বৃহস্পতিবার থেকে আরও গার্ড হাসপাতালে বৃদ্ধি করা হবে।

শেয়ার