মোংলায় কলেজ ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা

মোংলা প্রতিনিধি॥ মোংলায় বিয়ের প্রলোভনে এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে চাদঁপাই ইউপি মেম্বার প্রার্থী সুজয় বিশ্বাসের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। জোর পুর্বক ধর্ষণ ও তার ভিডিও ধারন করে সোস্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ করে মঙ্গলবার রাতে মোংলা থানায় মামলা করে নির্যাতিতা ওই কিশোরী। নির্যাতনের শিকার কিশোরীর পুলিশ হেফাজতে বুধবার বিকালে ডাক্তারী পরিক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। আর ধর্ষক সুজয় বিশ্বাসকে গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। তবে মামলার প্রায় ১৮ ঘন্টা অতিবাহিত হলেও এখনও গ্রেফতার হয়নি লম্পট সুজয় বিশ্বাস।

থানার মামলা সুত্রে জানা যায়, নির্যাতিতা কলেজ ছাত্রীর বাড়ীর পাশেই আসামীর বাড়ী হওয়ার সুবাধে এবং পারিবারিক সম্পর্ক থাকায় আসামী সুজয় বিশাস প্রায়ই তাদের বাড়ীতে আসা-যাওয়া করত। এরপর ঘটনার প্রায় তিন মাস পূর্ব থেকে আসামী তাকে বিভিন্ন সময়ে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলার প্রস্তাব দিয়ে আসছে। কিন্তু আসামীর কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তার মোবাইল ফোনে হুমকি ও বিভিন্ন প্রলোভন দেখাতো বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়। সর্বশেষ গত ২০ জুন বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে উপজেলার কালীকাবাড়ী গ্রামের নিজ বসত ঘরে টিভি দেখার সময় হঠাৎ ঘরে প্রবেশ করে লম্পট সুজয় বিশ্বাস। বাড়ীতে কেউ না থাকার সুযোগে কৌশলে ঘরের সামনের দরজা বন্ধ করে দেয় সুজয়। এসময় দরজা বন্ধ করতে নিষেধ করলে কলেজ ছাত্রী ওই কিশোরীকে জীবন নাশের হুমকি দেয় এবং তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ধর্ষন করে। এছাড়া আসামী সুজয় বিশ্বাস কৌশলে ধর্ষণের ঘটনা গোপনে মোবাইলে ধারন করে। ধর্ষণ শেষে এঘটনা কাউকে কিছু বললে ভিডিওটি সোস্যাল মিডিয়ায় (ফেসবুকে) ছড়িয়ে দেয়ারও হুমকি দেয় সুজয় বিশ্বাস। পরবর্তীতে পুনরায় তার সাথে এ অনৈতিক সম্পর্ক বজায় রাখার প্রস্তাব দেয় সুজয়। এভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে দিনের পর দিন তাকে ধর্ষণ করে আসছে সে। জীবন ও লোক লজ্জার ভয়ে কাউকে কিছু না বলে ধর্ষকের এ নির্যাতন মুখ বুঝে সহ্য করে আসছিল ওই কিশোরী। কয়েক দিন পুর্বে তাকে পুনরায় কু-প্রস্তাব দিলে রাজি না হওয়ায় ধারনকৃত ধর্ষণের ভিডিও এলাকার বিভিন্ন লোকের মোবাইল ফোনে সরবরাহ করে সুজয় বিশ্বাস। তার সাথে সম্পর্ক না রাখলে ভিডিও ইন্টারনেটেও ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছে কিশোরীর মোবাইল ফোনে। বিষয়টি তার পরিবারের সদস্যদের জানালে মঙ্গলবার রাতে মোংলা থানায় নির্যাতনের শিকার কলেজ ছাত্রী ওই কিশোরী বাদী হয়ে চাঁদপাই ইউনিয়নের কালীকাবাড়ী গ্রামের মৃত পুলিন বিশ্বাস’র ছেলে সুজয় বিশ্বাস’র (৩৫) বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। ধর্ষনের শিকার ওই কিশোরী খুলনা জেলার দাকোপ উপজেলার বাজুয়া এস, এন ডিগ্রী কলেজে অনার্স ২য় বর্ষে ছাত্রী।

এদিকে নাম প্রকাশ না করার স্বর্ত্বে স্থানীয়রা জানায়, কলেজ ছাত্রীর সাথে সুজয়ের এহেন ঘটনা বেশ কয়েকদিন যাবত বিভিন্ন মোবাইল ফোনে ভাইরাল হয়। বিষয়টি নিয়ে সুজয়ের বড় ভাই এনজিও কর্মী বিশ্বজিৎ বিশ্বাস ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার জন্য প্রভাবশালীদের নিয়ে চেষ্টা চালিয়ে আসলেও পুলিশের তোপের মুখে তা আর করতে পারেনি।

মোংলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, চাঁদপাই ইউনিয়নের কালীকাবাড়ী এলাকায় কলেজ ছাত্রীকে জোর পুর্বক ধর্ষণ ও পর্ণোগ্রাফি ধারায় মামলা হয়েছে এবং ওই কলেজ ছাত্রীকে পুলিশ হেফাজতে ডাক্তারী পরিক্ষা সম্পন্ন করে তার পরিবারের হেফাজতে রাখা হয়েছে। আসামীকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান থানার এ কর্মকর্তা।

শেয়ার