বেনাপোল হলে ভারতের তরল অক্সিজেনের দ্বিতীয় চালান ঢাকার পথে

সমাজের কথা ডেস্ক॥ তিনদিনের ব্যবধানে ভারতীয় রেলওয়ের ‘অক্সিজেন এক্সপ্রেস’ আরও ২০০ মেট্রিক টন তরল মেডিকেল অক্সিজেন নিয়ে সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ে স্টেশনে পৌঁছেছে।

বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ের স্টেশন মাস্টার ইসমাইল হোসেন জানান, বুধবার সকাল ১০টার দিকে ট্রেনটি পৌঁছায়। এবারও দশটি কন্টেইনারে ২০০ মেট্রিকটন তরল অক্সিজেন (এলএমও) আনা হয়েছে। স্টেশনে খালাস করে এই অক্সিজেন ঢাকায় নেওয়া হবে।

সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ে স্টেশনে বুধবার ভারত থেকে ২০০ মেট্রিক টন তরল মেডিকেল অক্সিজেন নিয়ে আসা ‘অক্সিজেন এক্সপ্রেস’ ট্রেন। ট্রেনের ১০টি কন্টেইনারে ২০০ মেট্রিক টন তরল অক্সিজেন (এলএমও) আনা হয়েছে এবার।
এর আগে ভারত থেকে আমদানি করা ২০০ মেট্রিকটন তরল অক্সিজেন নিয়ে শনিবার রাতে (২৪ জুলাই) বেনাপোল বন্দরে পৌঁছায় ‘অক্সিজেন এক্সপ্রেস’ ট্রেনটি। সেখানে আমদানি সংক্রান্ত আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে রোববার বেলা পৌনে ১১টার দিকে ট্রেনটি বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ে স্টেশনে পৌঁছায়।

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান লিনডে বাংলাদেশে সরকারি সহায়তায় করোনাভাইরাস মোকাবিলায় ভারত থেকে এই অক্সিজেন আমদানি করছে।
স্টেশন মাস্টার ইসমাইল হোসেন জানান, মঙ্গলবার সকালে ২০০ মেট্রিকটন তরল মেডিকেল অক্সিজেন বহনকারী ‘অক্সিজেন এক্সপ্রেস’ ভারতের টাটানগর থেকে বাংলাদেশের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। রাত সাড়ে ১০টার দিকে ট্রেনটি বেনাপোল পৌঁছায়। রাতেই কাস্টমসের আনুষ্ঠানিকতা শেষে বিশেষ এ ট্রেনটি সিরাজগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে।

এই স্টেশনে অক্সিজেন খালাস করে ট্রেনটি একই পথে আবারও ভারতে ফিরে যাবে বলে জানান স্টেশন মাস্টার।

সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ে স্টেশনে বুধবার ভারত থেকে তরল মেডিকেল অক্সিজেন নিয়ে আসা ‘অক্সিজেন এক্সপ্রেস’ ট্রেন থেকে খালাস করা হচ্ছে অক্সিজেন।
অক্সিজেন পরিবহনে ২০২১ সালের ২৪ এপ্রিল ভারত এই বিশেষ ট্রেন পরিসেবা চালু করে। দেশটির অভ্যন্তরে এ পর্যন্ত ৪৮০টি ট্রিপে অক্সিজেন পরিবহন করেছে ট্রেনটি। দেশের বাইরে এটাই এ ট্রেনের প্রথম অক্সিজেন পরিবহন।

মহামারীর দ্বিতীয় ঢেউয়ে ভারতে অক্সিজেন সঙ্কট দেখা দিলে সেখান থেকে অক্সিজেন রপ্তানি বন্ধ ছিল। এরপর পরিস্থিতির উন্নতি হলে ৫ জুলাই আবার অক্সিজেন পাঠানো শুরু করে ভারত।

শেয়ার