টোকিও অলিম্পিকস: ১৩ বছর বয়সীর চমক

সমাজের কথা ডেস্ক॥ টোকিও অলিম্পিকসে খেলতে আসা মোমিজি নিশিয়ার বয়সই চমকে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট। মাত্র ১৩ বছর! জাপানের এই কিশোরীই সোনা জিতে উপহার দিলেন আরও বড় চমক।

অলিম্পিকে এই প্রথম স্কেটবোর্ডিং ইভেন্ট যুক্ত হয়েছে। আরিয়াক পার্কে সোমবার স্কেটবোর্ডিংয়ের মেয়েদের স্ট্রিট ফাইনালে ১৫.২৬ পয়েন্ট তুলে সেরা হয়েছেন মোমিজি।

১৪.৬৪ পয়েন্ট নিয়ে রুপা জিতে চমক দেখিয়েছে রাইসা লিলেও। ব্রাজিলের এই অ্যাথলেটের বয়সও ১৩ বছর! ব্রোঞ্জ পাওয়া জাপানের ফুনা নাকাইয়ামার বয়স ১৬ বছর।

অলিম্পিকে জাপানের সবচেয়ে কম বয়সী সোনাজয়ী অ্যাথলেট মোমিজি। অলিম্পিকের ইতিহাসেও সবচেয়ে কম বয়সী সোনাজয়ীর তালিকায় থাকবেন তিনি।

রোমে ২০২১ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে রুপা জিতেছিলেন মোমিজি। অসাধারণ কৌশল, দক্ষতা ও ধারাবাহিকতা দেখিয়ে অলিম্পিকে পরলেন সোনার মুকুট।

টোকিও আসর দিয়েই প্রথমবার অলিম্পিকে এসেছে স্কেটবোর্ডিং। অভিষেকে সোনা জিতলেন হোরিগোমে ইউতো ও মোমিজি। তাদের হাত ধরে পুরুষ ও নারী দুই বিভাগেই সোনা জিতল জাপান।

স্কেটেলবোর্ডিংয়ের অন্তর্ভূক্তি অলিম্পিকে তারুণ্যের যে রোমাঞ্চ নিয়ে আসবে তা দেখতে উন্মুখ ছিলেন অনেকে। তবে কল্পনাকেও হয়তো ছাড়িয়ে গেছেন মোমিজি ও রাইসা। ১৩ বছরের দুই জন জিতলেন সোনা ও রুপা। ‘দা গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’ নামে পরিচিত প্রতিযোগিতায় তারা যেভাবে আলো ছড়ালেন তা হয়তো খুব কম মানুষই অনুমান করতে পেরেছিলেন। রাইসা শুধু ব্রাজিলের সর্বকনিষ্ট পদকজয়ীই নন, সর্বকনিষ্ট অলিম্পিয়ানও।

শেয়ার