যশোরে করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে ১৬ জনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে গেল ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ১১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে ও উপসর্গ নিয়ে পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময়ে জেলায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে আরও ২১৪ জনের। পরীক্ষা বিবেচনায় জেলায় করোনা শনাক্তের হার ২১ ভাগ। সোমবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন।

যশোর সিভিল সার্জন অফিসের তথ্য কর্মকর্তা ডা. রেহেনেওয়াজ জানান, জেলায় ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৩টি নমুনা পরীক্ষায় ২১৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে যবিপ্রবির জিনোম সেন্টারে ৭১২টি নমুনায় ১৩৯ জনের করোনা পজিটিভ আসে। জিন এক্সপার্টের মাধ্যমে ৯টি নমুনায় ছয়জনের এবং র‌্যাপিড এন্টিজেন টেস্টে ২৮২টি নমুনায় ৬৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তিনি আরও জানিয়েছেন, আক্রান্তদের মধ্যে সদর উপজেলা ও শহরে ১৩১ জন, কেশবপুর উপজেলায় ১১ জন, ঝিকরগাছা উপজেলায় ১৩ জন, অভয়নগর উপজেলায় ২৯ জন, মণিরামপুর উপজেলায় ১৪ জন, বাঘারপাড়া উপজেলায় একজন, শার্শা উপজেলায় ১০ জন এবং চৌগাছা উপজেলায় পাঁচজন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

এদিকে যশোর জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আরিফ আহমেদ জানান, হাসপাতালেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে আটজনের মৃত্যু হয়েছে। তারা হলেন, চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার জবেদা বেগম (৮০), মাগুরার শালিখা আড়পাড়া গ্রামের কাউছার আলীর ছেলে আমজেদ আলী (৭০), বাঘারপাড়া উপজেলার রায়পাড়া গ্রামের আতিয়ার রহমান (৫৫), শহরের ঘোপ এলাকার আলেয়া বেগম (৭০), নড়াইলের চরবিলা গ্রামের কামরুজ্জামান (৫০), সদর উপজেলার মাঠবাড়ি এলাকার আনোয়ারা বেগম (৪৭), সদর উপজেলার জামতলা এলাকার স্বরসতি (৩৫) এবং ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরের পাঁচপাতিলা গ্রামের ফাতেমা বেগম (৬০) করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এবং উপসর্গ নিয়ে পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালে রোগী ভর্তি রয়েছেন ১৯০ জন। এর মধ্যে করোনার রেডজোনে ১৩০ জন এবং ইয়েলো জোনে ৬০ জন রয়েছেন।

শেয়ার