কোভিড: খুলনায় একদিনে সর্বোচ্চ ২২ মৃত্যু

সমাজের কথা ডেস্ক॥ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে খুলনায় মারা গেছেন আরও ২২ জন, যা এখন পর্যন্ত এই বিভাগে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু। এর মধ্যে কুষ্টিয়ায় সর্বোচ্চ সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে বিভাগে ৬২৫ জনের শরীরে করোনার উপস্থিতি পাওয়া গেছে এবং সুস্থ হয়েছেন আরও ১৯২ জন। শনিবার (১৯ জুন) দুপুরে বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক রাশেদা সুলতানা এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের দফতর সূত্রে জানা যায়, গত ২৪ ঘণ্টায় কুষ্টিয়ার সাতজন, খুলনার তিনজন, সাতক্ষীরার চারজন, যশোরের তিনজন, চুয়াডাঙ্গার দুইজন, মেহেরপুরের দুইজন এবং ঝিনাইদহের একজন মৃত্যুবরণ করেছেন।

এদিকে স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে বিকেলে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে খুলনা বিভাগে ২৪ জন মারা যাওয়ার তথ্য জানানো হয়েছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) বিভাগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১৮ জনের মৃত্যু হয়। তবে শুক্রবার বিভাগে ৮ জনের মৃত্যু হয়।

খুলনা বিভাগের মধ্যে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় চুয়াডাঙ্গায় গত বছরের ১৯ মার্চ। করোনা সংক্রমণের শুরু থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত বিভাগের ১০ জেলায় মোট শনাক্ত হয়েছে ৪৪ হাজার ২৬৯ জন। আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭৯৭ জনে। এ সময় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩৪ হাজার ১২৬ জন।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের জেলাভিত্তিক করোনা সংক্রান্ত তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, খুলনায় ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ১৪৯ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ১২ হাজার ৫৯৮ জন। মারা গেছে ২০৬ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৯ হাজার ৯৩৪ জন।

বাগেরহাটে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে তিনজনের। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ৪৮২ জন। আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬৩ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৭২২ জন।
সাতক্ষীরায় ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ৫৬ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ৮৫২ জন এবং মারা গেছেন ৬০ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ হাজার ৯২৮ জন।
যশোরে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ১৬৩ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৯ হাজার ৪০৭ জন। মারা গেছেন ১০৪ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৬ হাজার ৭৪১ জন।

২৪ ঘণ্টায় নড়াইলে নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ১৮ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ২১৮ জন। মারা গেছেন ৩০ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৮৪৭ জন।

মাগুরায় ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ১০ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৩৮৫ জন। এ সময় মারা গেছেন ২৪ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ২২০ জন।

ঝিনাইদহে ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ২৪ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩ হাজার ৩০৬ জন। মারা গেছেন ৬২ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৮৬৮ জন।
২৪ ঘণ্টায় কুষ্টিয়ায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ১১২ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৬ হাজার ১৭৪ জন। মারা গেছেন ১৪৭ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৪ হাজার ৯৭৩ জন।
চুয়াডাঙ্গায় ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ৭৬ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ৫২৩ জন। মারা গেছেন ৬৮ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৯৩৮ জন।
মেহেরপুরে নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ১৪ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৩১৪ জন। আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৩৩ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৯৫৫ জন।
এদিকে কোভিড সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার আশঙ্কাজনকভাবে বেড়ে যাওয়ায় খুলনায় মঙ্গলবার থেকে ৭ দিনের কঠোর লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। শনিবার দুপুরে জেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন বলেন, লকডাউন চলাকালে খুলনা নগর ও জেলায় গণপরিবহন সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে। শুধু ওষুধ এবং জরুরি কাঁচামাল ব্যতীত সবধরনের দোকানপাট এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে।

 

শেয়ার