বাগেরহাটে করোনায় আক্রান্ত ৫২ ॥ একজনের মৃত্যু

বাগেরহাট প্রতিনিধি ॥ গত ২৪ ঘন্টায় বাগেরহাটে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এসময় জেলায় নমুনা পরীক্ষায় নতুন করে আরও ৫২ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। ১০৭টি নমুনা পরীক্ষায় ৫২ জনের শরীরেই মিলেছে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি। জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় সংক্রমণের হার ৪৮ দশমিক ৫৯ শতাংশ। যা গতদিনের তুলনায় ১৪ শতাংশ বেশি। জেলার সবচেয়ে ঝুঁকিতে থাকা মোংলা উপজেলাতে ৩০টি নমুনা পরীক্ষায় ১৪ জনের শরীরে সংক্রমণ ধরা পড়ে। সেখানে সংক্রমণের হার ৪৬ দশমিক ৬৬ শতাংশ। যা গত ২৪ ঘন্টার তুলনায় ১৯ শতাংশ কম। (বুধবার ভোর ছয়টা থেকে বৃহষ্পতিবার ভোর ছয়টা পর্যন্ত)।

সূত্র জানায়, বাগেরহাট জেলায় করোনা ভাইরাসে সংক্রমণে প্রথম ও দ্বিতীয় ঢেউয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাাঁড়াল দুই হাজার ৩৮৭ জন। এরমধ্যে সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৬০০ জন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬৩। এই তথ্য জানিয়েছে জেলা সিভিল সার্জনের কার্যালয় সূত্র।

এদিকে, জেলার সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে থাকা মোংলা উপজেলায় তৃতীয় দফায় আরও সাতদিনের কঠোর বিধি নিষেধ আরোপ করেছে প্রশাসন। তবে কঠোর বিধিনিষেধ ও স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে সাধারণ মানুষের চলাফেরা বেড়েছে। জনসমাগমের উৎসস্থল হাটবাজারে মানুষের উপচে পড়া ভিড়। প্রশাসনের আরোপ করা কঠোর বিধিনিষেধ কেউ মানছেন না। নৌকাতে গাদাগাদি করে যাত্রী পারাপার চলছে। ফলে স্বাস্থ ঝুঁকি বাড়ছে। প্রশাসনের আরোপিত কঠোর বিধিনিষেধ ২৩ জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন মোংলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার।

বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কে এম হুমায়ুন কবির বলেন, বাগেরহাটে দ্বিতীয় ঢেউয়ে গত মার্চ মাস থেকে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বাড়তে শুরু করে। চিকিৎসার জন্য ৫০ শয্যার একটি করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল প্রস্তুত রাখা আছে। সেখানে সেন্ট্রাল অক্সিজেনের পর্যাপ্ত সরবরাহ রাখা হয়েছে। জেলার সবচেয়ে ঝুঁকিতে রয়েছে মোংলা। সেখানে প্রতিদিন সংক্রমিত রোগী বাড়ছে। নমুনা পরীক্ষায় সংক্রমণেরহার ৬০ থেকে ৭০ শতাংশের মধ্যে ওঠানামা করছে, যা উদ্বেগজনক। এছাড়া মোংলার সীমান্তবর্তি শরণখোলা ও মোরেলগঞ্জ উপজেলা দুটি ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। সেখানে যাতে সংক্রমণের বিস্তার লাভ না করতে পারে, সেখানে প্রশাসন ব্যবস্থা নিয়েছে। করোনার সংক্রমণরোধে আমাদের যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কথা তা কেউ মানছে না।
তিনি আরও বলেন, বাগেরহাটে গত ২৪ ঘন্টায় আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় সংগ্রহ করা ১০৭টি নমুনা পরীক্ষায় ৫২ জনের করোনা পজেটিভ এসেছে। জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় সংক্রমণেরহার ৪৮ শতাংশ। যা গত ২৪ ঘন্টার তুলনায় ১৪ শতাংশ বেশি। সবচেয়ে ঝুঁকিতে থাকা মোংলা উপজেলাতে গত ২৪ ঘন্টার নমুনা পরীক্ষায় ৩০টির মধ্যে ১৪টি পজেটিভ এসেছে। মোংলায় সংক্রমণেরহার ৪৬ শতাংশ। যা গতদিনের তুলনায় ১৯ শতাংশ কম। মোংলাতে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় সংক্রমণ বাড়ছে বলে মনে করেন এই স্বাস্থ্য কর্মকর্তা।

শেয়ার