জাগরণী চক্রের নারী কর্মকর্তাকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে সাবেক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরের তহমিনা খাতুন নামে জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশনের নারী কর্মকর্তাকে মারপিট ও শ্লীলতাহানির অভিযোগে সাবেক জুনিয়র কর্মকর্তা মিঠুন বিশ্বাসের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার তহমিনা খাতুন বাদী হয়ে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এই মামলা করেন। বিচারক সাইফুদ্দীন হোসাইন তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) নির্দেশ দিয়েছেন। আসামি মিঠুন বিশ্বাস ঝিনাইদহ সদর উপজেলার মুনুডিয়া গ্রামের শাখন লাল বিশ্বাসের ছেলে।
মামলার বাদী তহমিনা খাতুন জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশনের মাইক্রো ফাইন্যান্স প্রোগ্রামের ব্যবস্থাপক পদে কর্মরত আছেন। আসামি মিঠুন বিশ্বাস এই অফিসে জুনিয়র অফিসার হিসেবে কর্মরত ছিল। মিঠুন বিভিন্ন সময় তহমিনা খাতুনকে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি, কটুক্তি ও কুপ্রস্তাব দিতো। মিঠুনকে নিষেধ করলেও কর্ণপাত করেনা। গত ২ ফেব্রুয়ারি অফিসে কর্মরত থাকা অবস্থায় আসামি ওই কর্মকর্তার পিঠে আঘাত করে এবং অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করে।

এ ব্যাপারে অফিসের নারী ফোরামে অভিযোগ করলে তদন্ত শেষে সত্যতা পাওয়ায় আসামি মিঠুন বিশ্বাসকে চাকরিচ্যুত করা হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে আসামি ওই কর্মকর্তার ক্ষতি করার ষড়যন্ত্র করতে থাকে। গত ১৩ জুন সকাল ৯টার দিকে রোটারি হাসপাতালের সামনে আসামি ওই কর্মকর্তাকে গতিরোধ করে ও গালিগালাজ করে। এসময় প্রতিবাদ করলে তাকে মারপিট, শ্লীলতাহানি ও গলার চেইন ছিনিয়ে নেয়। চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এলে আসামি মিঠুন পালিয়ে যায়। তহমিনা খাতুন অফিসে গিয়ে সহকর্মীদের জানিয়ে গতকাল আদালতে এই মামলা করেছেন।

শেয়ার