করোনাভাইরাসের উৎস খুঁজতে চীনের সদিচ্ছা নিয়ে প্রশ্ন বাইডেনের

সমাজের কথা ডেস্ক॥ মহামারী পরিস্থিতিতে বিশ্বের দরবারে নিজেকে দায়িত্বশীল রাষ্ট্র হিসেবে তুলে ধরতে চাইলেও প্রকৃতপক্ষে চীন করোনাভাইরাসের উৎপত্তি খুঁজতে চেষ্টা করছে কিনা এখনও অস্পষ্ট বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় বুধবার রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে শীর্ষ বৈঠক শেষে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে এমন্তব্য করেন তিনি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) তদন্তকারীদের আবারও প্রবেশের অনুমতি দেওয়া নিয়ে তিনি ‘পুরানো বন্ধু’ চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিন পিংকে ফোন করবেন কিনা তা জানতে চাওয়া হয়েছিল।

জবাবে বাইডেন বলেন, “একটা বিষয় পরিস্কার করে দিতে চাই- আমরা পরস্পরকে ভালোভাবেই চিনি, আমরা পুরনো বন্ধু নই। এটা শুধুই দায়িত্বপালন।”

ডব্লিউএইচওর তদন্তে চীনের সহযোগিতার বিষয়ে সংশয় প্রকাশ করেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট।

তিনি বলেন, “দেখুন, কিছু বিষয় বিশ্ববাসীকে ব্যাখ্যা করে বোঝানোর দরকার নেই, তারা ফলাফল দেখছে। চীন কি আসলেই জানার চেষ্টা করছে, ভাইরাসটির উৎপত্তি কোথায়?”

চীনের উহান শহরে প্রথম শনাক্ত হওয়া কোভিড-১৯ রোগের কারণ এই ভাইরাসের উৎপত্তি খুঁজতে মে মাসে বাইডেন নিজ প্রশাসনকে নির্দেশ দেন। তিনি বলেন, চীনের পরীক্ষাগারের সম্ভাব্য দুর্ঘটনার তত্ত্বসহ সম্ভাব্য বিপরীত তত্ত্বও যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো খতিয়ে দেখছে।

ডব্লিউএইচওর নেতৃত্বে একটি দল গত জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারিতে চীনের উহান শহরে চার সপ্তাহ অনুসন্ধান চালায়। তাদের সঙ্গে চীনের গবেষকরাও ছিলেন।

তদন্ত দলের প্রতিবেদনে বলা হয়, মানবদেহে ভাইরাসটির সংক্রমণ সম্ভবত বাদুর থেকে হয়েছে। পরীক্ষাগারের দুর্ঘটনা থেকে সংক্রমণের তত্ত্ব ‘খুবই অসম্ভব’।

তবে কিছু তথ্য গোপন করা হয়েছে বলে বিশেষজ্ঞদের দাবি। যুক্তরাষ্ট্রও বলছে, গবেষণাটি ‘অপর্যাপ্ত’ ও ‘উপসংহারে পৌঁছানোর মতো নয়’।

বিষয়টি নিয়ে ‘রাজনীতি’ করা হলে তা তদন্তে ব্যাঘাত ঘটাবে বলে চীন বরাবরই সতর্ক করে আসছে।

শেয়ার