তেড়ে যাওয়ার ঘটনায় পার পেলেন খালেদ মাহমুদ

সমাজের কথা ডেস্ক॥ সাকিব আল হাসানের স্টাম্পে লাথি আর আছাড়ের দুটি ঘটনা নিয়ে চর্চা বেশি হয়েছে। এই দুই ঘটনায় শাস্তিও পেয়েছেন মোহামেডান অধিনায়ক। তবে পরস্পরের দিকে তেড়ে যাওয়ার ঘটনায় বেঁচে গেছেন বাঁহাতি এই অলরাউন্ডার, পার পেয়ে গেছেন আবাহনী কোচ খালেদ মাহমুদও।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আবাহনী-মোহামেডান ম্যাচে সাকিবের তিন বিতর্কিত ঘটনার দুটি এসেছে আম্পায়ার ও ম্যাচ রেফারির রিপোর্টে।

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের আয়োজক ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিসের প্রধান কাজী ইনাম আহমেদ জানান, তাদের কাছে আসা রিপোর্টে সাকিবের বিরুদ্ধে দুটি অভিযোগ আনা হয়। স্টাম্পে লাথি ও আছাড়ের ঘটনায় মোহামেডান অধিনায়ককে তিন ম্যাচ নিষিদ্ধ ও ৫ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

স্টাম্প উপড়ে আছাড় দেওয়ার পর মাঠ ছাড়ার সময় আবাহনীর ড্রেসিংরুমের দিকে অশালীন অঙ্গভঙ্গি করেন সাকিব। তার দিকে তেড়ে যান আবাহনী কোচ মাহমুদ। মোহামেডানের শামসুর রহমান মাঠ ছাড়ার সময়ই সেদিকে গিয়ে তাকে ফিরিয়ে নিয়ে যান।

সাকিবও তেড়ে আসছিলেন। তবে মোহামেডানের খেলোয়াড়রা তাকে নিয়ে যান ড্রেসিংরুমের ভেতরে। এই ঘটনাও যথেষ্ট দৃষ্টিকটু।

বিসিবির পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দোষ স্বীকার করে শাস্তি মেনে নিয়েছেন সাকিব। তাই আনুষ্ঠানিক শুনানির দরকার পড়েনি।

এতেও সাকিব-মাহমুদের পরস্পরের দিকে তেড়ে যাওয়ার ঘটনার উল্লেখ নেই।

 

 

শেয়ার