আইসিসির মে মাসের সেরার লড়াইয়ে মুশফিক

সমাজের কথা ডেস্ক॥ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ব্যাট হাতে অসাধারণ পারফরম্যান্স মুশফিকুর রহিমকে সুযোগ করে দিয়েছে দারুণ এক স্বীকৃতি অর্জনের। ‘আইসিসি প্লেয়ার অব দা মান্থ’-এর সংক্ষিপ্ত তালিকায় জায়গা পেয়েছেন বাংলাদেশের অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান। মে মাসের সেরা হওয়ার লড়াইয়ে তার সঙ্গে আছেন হাসান আলি ও প্রাভিন জয়াবিক্রমা।

গত মাসে লঙ্কানদের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো সিরিজ জয়ের রেকর্ড গড়ে বাংলাদেশ। যেখানে বড় অবদান রেখে বাংলাদেশের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে এতে মনোনীত হলেন মুশফিক। প্রথম দুই ম্যাচেই দলের বিপদে হাল ধরে জয়ের ভিত গড়ে দেন তিনি।

প্রথম ওয়ানডেতে ৮৪ রানের ইনিংস খেলেন মুশফিক। দ্বিতীয়টিতে করেন ১২৫ রান। তিন ম্যাচের সিরিজ এক ম্যাচ বাকি থাকতেই জিতে যায় স্বাগতিকরা।

শেষ ম্যাচে মুশফিকের ব্যাট থেকে আসে ২৮ রান। সব মিলিয়ে ২৩৭ রান নিয়ে সিরিজ সেরার পুরস্কারও জেতেন তিনি। এবার তার সামনে আরও বড় অর্জনের হাতছানি।

হাসান আলি সংক্ষিপ্ত তালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের পারফরম্যান্সে। দুই টেস্ট খেলে ১৪ উইকেট নিয়েছিলেন এই পেসার।

আর জয়াবিক্রমা সেরার লড়াইয়ে উঠে এসেছেন এক টেস্ট খেলেই। সাদা পোশাকে অভিষেকেই আলো ছড়ানো বাঁহাতি এই স্পিনার বাংলাদেশের বিপক্ষে পাল্লেকেলেতে দুই ইনিংসেই পাঁচ উইকেটের স্বাদ পান। ম্যাচ মোট নেন ১১ উইকেট নেন।

মেয়েদের মে মাসের সেরার লড়াইয়ে আছেন আয়ারল্যান্ডের দুই জন, বাঁহাতি স্পিনার লিয়া পল ও লেগ স্পিনিং অলরাউন্ডার গ্যাবি লুইস। তিন জনের সংক্ষিপ্ত তালিকায় অন্যজন হলেন স্কটল্যান্ড অলরাউন্ডার ক্যাথরিন ব্রাইস।

আইরিশদের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে দারুণ অলরাউন্ড পারফরম্যান্স করেন ব্রাইস। চার ম্যাচ খেলে ৯৬ রানের পাশপাশি ৪.৭৬ গড়ে নেন ৫ উইকেট। আয়ারল্যান্ডের লুইস ১১৬ রান করে হন সিরিজের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। আর তার সতীর্থ পল ৯ উইকেট নিয়ে সিরিজের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি বোলার।

এই বছর থেকেই আইসিসি মাস সেরা ক্রিকেটারের স্বীকৃতি দেওয়া শুরু করেছে। আইসিসির ভোটিং একাডেমি ও ক্রিকেট সমর্থকদের যৌথ ভোটে নির্বাচন করা হয় মাসের সেরা দুই ক্রিকেটার। ভোটিং একাডেমিতে আছেন জ্যেষ্ঠ ক্রীড়া সাংবাদিক, সাবেক ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকাররা। তারা ভোট দেন ই-মেইলে, আইসিসির নিবন্ধিত সমর্থকদের ভোট দিতে হয় আইসিসির ওয়েবসাইটে।

সেরার রায়ে ভোটিং একাডেমির ভোট বিবেচনায় নেওয়া হয় শতকরা ৯০ ভাগ, সমর্থকদের ভোট বাকি ১০ ভাগ।

পরপর প্রথম তিন মাসেই সেরা পুরুষ ক্রিকেটারের স্বীকৃতি পেয়েছিলেন ভারতের ক্রিকেটাররা। জানুয়ারিতে রিশাভ পান্ত, ফেব্রুয়ারিতে রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও মার্চে ভুবনেশ্বর কুমার। এপ্রিলে এই পুরস্কার ওঠে পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজমের হাতে। আর এই চার মাসে সেরা নারী ক্রিকেটার হয়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার শাবনিম ইসমাইল, ইংল্যান্ডের ট্যামি বিউমন্ট, দক্ষিণ আফ্রিকার লিজেল লি ও অস্ট্রেলিয়ার কিপার-ব্যাটার এলিসা হিলি।

 

শেয়ার