যশোরে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের আলোচনা সভা
৭৫ পরবর্তী বাংলাদেশের সফল ও সাহসী মানবিক রাষ্ট্রনায়কের নাম শেখ হাসিনা : এমপি শাহীন চাকলাদার

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার এমপি বলেছেন, সামরিক শাসকের রক্তচক্ষু ও নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ১৯৮১ সালের ১৭ মে প্রিয় স্বদেশভূমিতে প্রত্যাবর্তন করেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফিরে এসেছিলেন বলেই বঙ্গবন্ধুর খুনি ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের রায় কার্যকর করা হয়েছে। বাংলাদেশ হয়েছে পাপ ও কলঙ্কমুক্ত। তাই ৭৫ পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল ও সাহসী মানবিক রাষ্ট্রনায়কের নাম শেখ হাসিনা। তাঁর নেতৃত্বে দুর্বার গতিতে দেশ এগিয়ে চলছে। গতকাল সোমবার বিকালে যশোর জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে দেশের সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। জেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের আলোচনা সভাকে কেন্দ্র করে এদিন জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে নেতৃবৃন্দদের মাঝে ঈদ পরবর্তী মিলনমেলায় পরিণত হয়। একে অন্যের সাথে কুশলাদি বিনিময় করেন।
যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি শাহীন চাকলাদার বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকরা ইতিহাসের নৃশংসতম হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যা করে। এসময় বিদেশে থাকায় আল্লাহর অশেষ রহমতে বেঁচে যান বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহেনা। বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে নষ্ট করে বাঙালি জাতির অস্তিত্বকে বিপন্ন করতে নানামুখী ষড়যন্ত্র শুরু করে ঘাতকগোষ্ঠী। দেশের এমন ক্রান্তিলগ্নে বঙ্গবন্ধুর দেশপ্রেমে অনুপ্রাণিত হয়ে তারই কন্যা শেখ হাসিনা এই বাংলায় ফিরে আসেন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিলে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার অনুপস্থিতিতে তাঁকে সংগঠনের সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। তারপর আওয়ামী লীগের সভানেত্রী হিসেবে দীর্ঘ ১৫ বছর আন্দোলন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে ১৯৯৬ সালে সরকার গঠন করে দেশ গঠনে এগিয়ে যান তিনি। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ আজ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছে। আগামী দিনে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ থেকে দেশের বিরুদ্ধে সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করতে যশোর জেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দকে সজাগ ও ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। এসময় তিনি দেশকে ভালো রাখতে ও উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে তিনি জননেত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন।

যশোর পৌর ৩ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম ইউসুফ শাহিদের পরিচালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আব্দুল মজিদ, আব্দুল খালেক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মীর জহিরুল হক, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও আরবপুর ইউপি চেয়ারম্যান শাহারুল ইসলাম, সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জ্যোৎস্না আরা মিলি, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আসাদুজ্জামান আসাদ, শ্রমিকলীগনেতা নাসির উদ্দিন, সদর উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক অশোক বোস, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক নেতা আরাফাত রহমান বাসিত। এসময় অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট আলী রায়হান, ফারুক আহমেদ কচি, ফিরোজ আহমেদ, জামান চৌধুরী, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান মিন্টু, যশোর পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও জেলা মহিলা আওয়ামী লীগনেত্রী রোকেয়া পারভীন ডলি, যশোর শহর আওয়ামী লীগনেতা রফিকুল ইসলাম কচি, গোলাম সিদ্দিকী, ওলিয়ার রহমান, মহিউদ্দিন, রফিকুল ইসলাম রফিক, সুলতান মাহমুদ পরান, শামীম আহম্মেদ রনি, মহিলা আওয়ামী লীগনেত্রী রেহেনা আক্তার, শিউলি মির্জা, মাজেদা পারভীন, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সদস্য আলী হোসেন নয়ন, যশোর পৌর ১ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ওলিয়ার রহমান, সাধারণ সম্পাদক হুমায়ন কবির, ২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম, ৩ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ইয়াকুব আলী খান, ৪ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লোকমান হোসেন, ৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসান ইমাম বাবলু, সাধারণ সম্পাদক কবিরুল আলম, ৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি জহুরুল ইসলাম বড়–য়া, সাধারণ সম্পাদক নুর ইসলাম, ৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মোস্তাফা, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোয়াজেম হোসেন মুকুল, ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নুর ইসলাম খান রবি, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি ও জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগনেতা এস এম নিয়ামত উল্ল্যাহ, সদর উপজেলা যুব মহিলালীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শেখ সাদিয়া মৌরিন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সালাউদ্দিন কবির পিয়াস, সাধারণ সম্পাদক তানজীব নওশাদ পল্লব, সহসভাপতি ইয়াসিন আরাফাত তরুণ, আরিফুর রহমান সাগর, শাহাদাৎ হোসেন রনি হাওলাদার, কায়েস আহমেদ রিমু, রাজু রানা, আলী হাসান মোর্তজা রিফাত, আবদুর রউফ পিন্টু, রুহুল কুদ্দুস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিফাতুজ্জামান রিফাত, আসাদুজ্জামান আসাদ, আশিকুর রহমান হৃদয়, ইমন হোসেন শিমুল সরদার, মাসুদ হাসান কৌশিক, সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস হোসেন রিয়াদ, এসএম তানভীর আহমেদ রিয়েল ও ফাহমিদ হুদা বিজয় প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

শেয়ার